কৃষক আন্দোলনকে দেশের কোণে কোণে ছড়িয়ে দিতে একযোগে লড়বে তৃণমূল ও অকালি

কেন্দ্রের কৃষি আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ আর কৃষকদের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। সারা দেশের মানুষ আজ কৃষকদের জন্য পথে।  এমনকী কানাডার প্রধানমন্ত্রীও বিবৃতি দিচ্ছেন। তাই কৃষকবিরোধী ও জনবিরোধী আইন কেন্দ্রকে প্রত্যাহার করতেই হবে। শনিবার সাংবাদিক বৈঠক থেকে এমনই দাবি তুললেন তৃণমূল সাংসদ সুদীপ ব্যানার্জি ও শিরোমণি অকালি দলের ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রেম সিংহ চন্দ্র মজরা।

কেন্দ্রের কৃষি আইনের বিরোধিতায় সরব হওয়া কৃষক আন্দোলনকে সারা দেশে ছড়িয়ে দিতে এদিন অকালি দলের সাংসদ তথা আন্দোলনরত কৃষকদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করে তৃণমূল। আলোচনা শেষে সাংবাদিক বৈঠক থেকে সুদীপ ও প্রেম সিংহের দাবি, কৃষি আইনের মাধ্যমে কৃষকদের অধিকার হরণের চেষ্টা করছে মোদী সরকার। শুধু ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বা MSP নিয়ে নয়, এই আন্দোলন কৃষকদের অধিকার নিয়েও। সুদীপ ব্যানার্জির কথায়, বিরোধীদের সঙ্গে আলোচনা করে তবেই কৃষি বিল উপস্থাপন করা উচিত ছিল কেন্দ্রের। কিন্তু সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতার জোরে তা পাশ করিয়ে নেওয়া হয়। কৃষক বিরোধী বিল অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে। স্ট্যান্ডিং কমিটিতে পাঠিয়ে ফের সংশোধিত বিল পাশ হোক। 

সেই সঙ্গে সুদীপ ব্যানার্জির ঘোষণা, আগামী দিনে রাজ্যের ব্লক থেকে জেলা স্তরে কেন্দ্রের কৃষি আইনের বিরুদ্ধে কর্মসূচি নিয়েছে তৃণমূল। 

এদিকে অকালি নেতা প্রেম সিংহ বলেন, দেশজুড়ে আঞ্চলিক দলগুলিকে সংঘবদ্ধ করে কৃষি আইনের বিরোধিতায় বৃহত্তর আন্দোলনে নামতে হবে। বাংলায় সেই পথ দেখিয়েছেন মমতা ব্যানার্জি। তিনি আরও জানান, আগামী ২-৩ সপ্তাহের মধ্যে চূড়ান্ত কর্মসূচি জানিয়ে কৃষকদের নিয়ে পথে নামছেন তাঁরা।

Comments
Loading...