ক্ষমতায় আসার দিবাস্বপ্ন দেখছে বিজেপি! কোনও রাজ্যকে না, মোদী-শাহ চিন-পাকিস্তানকে টার্গেট করুন, কটাক্ষ তৃণমূলের

২১ এর বিধানসভা ভোটকে পাখির চোখ করে বাংলাকে ৫ ভাগে ভেঙ্গে ৫ জন কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক নিয়োগ করছে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব। কয়েক দিনের মধ্যে আবার বাংলায় আসার কথা অমিত শাহের। এই পরিস্থিতিতে নিয়ম করে বিজেপিকে আক্রমণ জারি রেখেছে তৃণমূল। বুধবার তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায় বিজেপিকে তীব্র কটাক্ষ করে বললেন, বাংলায় নতুন করে অশান্তি পাকাতে ‘স্থানীয় এজেন্টদের’ মাধ্যমে উদগ্রীব হয়ে উঠেছে ‘বহিরাগত’রা।

বুধবার তৃণমূল ভবনে সুখেন্দুশেখর রায় ও ওমপ্রকাশ মিশ্র সাংবাদিক বৈঠকে একযোগে বিজেপিকে নিশানা করেন।

সুখেন্দুশেখর বলেন, মমতার সরকারের আমলে জঙ্গলমহল থেকে পাহাড় যখন শান্ত, তখন তা ফের উত্তপ্ত করার চেষ্টা চালাচ্ছে বহিরাগতরা। তিনি বলেন, একদিকে সহযোগিতামূলক যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর কথা বলে অন্যদিক দিয়ে পুলিশকে মারের মতো কথা বলে নেতিবাচক রাজনীতি চালাচ্ছে বিজেপি। কিছু বহিরাগত এজেন্ট দিয়ে বাংলায় রাজনীতিকে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চলছে। তৃণমূল সাংসদের কটাক্ষ, লোকসভা ভোটে ১৮ টা আসন জিতে এখন বাংলা জয়ের দিবাস্বপ্ন দেখছে বিজেপি। লোকসভা ও বিধানসভা ভোটের মধ্যে বিস্তর পার্থক্য! মমতা ব্যানার্জির আমলে রাজ্যের উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরেন তিনি।

বঙ্গ বিজেপির নেতারা ক্ষমতায় এলে এ রাজ্যে গুজরাত মডেল চালুর ডাক দিচ্ছেন। এই প্রেক্ষিতে তৃণমূল সাংসদ বাংলা ও গুজরাতের স্বাস্থ্য ও শিক্ষা বাজেটের তুলনা টেনে দাবি করেন মোদীর রাজ্য বহু পিছিয়ে। একশো দিনের কাজ থেকে গত দুই আর্থিক বর্ষে কৃষিক্ষেত্রে বাজেট বৃদ্ধি, সব কিছুতেই বাংলা এগিয়ে আছে বলে দাবি করেন সুখেন্দুবাবু। তাঁর কটাক্ষ, যে গুজরাত এক সময় মানবাধিকার লঙ্ঘনে রেকর্ড গড়েছিল সেই মডেল বাংলায় করতে এলে মানুষই তা খারিজ করবে। 

বাংলা জয় এবার বিজেপির টার্গেট কিনা জানতে চাইলে তৃণমূল সাংসদের বার্তা, দেশের কোনও রাজ্য নয়, মোদী-শাহদের টার্গেট হওয়া উচিত চিন ও পাকিস্তান।

বুধবার তৃণমূল ভবনের সাংবাদিক বৈঠকে সুখেন্দুশেখরের পাশাপাশি ছিলেন ওমপ্রকাশ মিশ্রও। ওমপ্রকাশ মিশ্র বলেন, ক্ষমতায় আসার দিবাস্বপ্ন দেখছে বিজেপি। রাজ্যের মানুষ মমতা ব্যানার্জির উন্নয়নের সঙ্গেই থাকবেন।   

Comments
Loading...