বিজেপি-কংগ্রেস কেউই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে না, দেশে সরকার গড়বে বাংলা এবং উত্তর প্রদেশঃ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

বিজেপি বা কংগ্রেস কেউই একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে না, বাংলা ও উত্তর প্রদেশ কেন্দ্রে সরকার গড়তে প্রধান ভূমিকা নেবে বলে মন্তব্য তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। ফের বললেন, দেশে এবার সরকার গড়বে তৃণমূল।
মঙ্গলবার দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা ঘোষের সমর্থনে দুটি নির্বাচনী সভা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইটাহার ও নারায়ণপুরের, দুটি সভা থেকেই বিজেপির বিরুদ্ধে তীব্র আক্রমণ শানিয়ে তৃণমূল নেত্রী বলেন, শুধু বাংলার জন্য নয় দেশের জন্য এই ভোট অতি গুরুত্বপূর্ণ। ছন্দ মিলিয়ে মমতার মন্তব্য, ‘২০১৯ বিজেপি ফিনিশ’। বাংলা নববর্ষের শুভাচ্ছা জানিয়ে মমতার বার্তা, ‘১৪২৬, মানুষ বলছে ৪২-এ ৪২’। এদিন মমতা ফের সিপিএম-কংগ্রেসের ভোটারদের উদ্দেশে বলেন, ভোট নষ্ট না করতে। তাঁর মতে, বাংলায় তৃণমূলই লড়াই করছে বিজেপির বিরুদ্ধে।
নারায়ণপুরের সভা থেকে মমতার অভিযোগ, পাঁচ বছরে মোদী জমানায় ১২ হাজার কৃষক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে দেশজুড়ে। দলিত ও সংখ্যালঘুদের ওপর আক্রমণ করেছে বিজেপি সরকার, অভিযোগ তৃণমূল নেত্রীর। এই অবস্থায় দেশের দরকার একটা মানুষের সরকার। আর বাংলা ও উত্তর প্রদেশই কেন্দ্রে সরকার গড়তে বিশেষ ভূমিকা নেবে বলে মন্তব্য করেন মমতা। তাঁর অভিযোগ, বাংলাকে কিছুই দেয়নি বিজেপি সরকার। না দিয়েছে নতুন প্রকল্প, না দিয়েছে নতুন ট্রেন। মমতা বলেন, বিজেপি আর ক্ষমতায় ফিরছে না দিল্লিতে। আর এ রাজ্যে তারা একটি আসনও পাবে না বলে জানান তৃণমূল নেত্রী। মমতা জানিয়ে দেন, ‘ইউনাইটেড ইন্ডিয়া’ ক্ষমতায় আসছে এবার।
এনআরসি ইস্যুতে নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ জুটিকে ‘জগাই -মাধাই’ বলে কটাক্ষ করে তৃণমূল নেত্রী বলেন, বাংলায় কোনওভাবেই এনআরসি চালু হতে দেবেন না তিনি। ইটাহারের নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে মমতার তোপ, এনআরসি-র ‘এন’ ছুঁয়ে দেখাক, তারপর ‘আর সি’ করবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, নিজের জীবন বাজি রাখতে রাজি, কিন্তু ধর্মের নামে ভাগাভাগির রাজনীতি চলতে দেবেন না।

Comments
Loading...