মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে কাটল জট, শুক্রবার থেকে ফের শুরু হচ্ছে সিরিয়ালের শুটিং

অবশেষে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হস্তক্ষেপে অবসান হল টলিউডে গত ছ’দিন ধরে চলে আসা অচলাবস্থার। শুক্রবার থেকেই ফের শুরু হচ্ছে বাংলা ধারাবাহিকের শ্যুটিং। বৃহস্পতিবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী ধারাবাহিকের অচলাবস্থা কাটাতে মিটিং করেন। এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, আর্টিস্ট ফোরাম, প্রযোজক ও স্ক্রিপ্ট রাইটারদের প্রতিনিধিরা। ছিলেন বিভিন্ন চ্যানেলের প্রতিনিধিরাও। রাজ্যের তরফে ছিলেন টালিগঞ্জের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, টেকনিশিয়ানদের সংগঠনের তরফে ছিলেন স্বরূপ বিশ্বাস ও টেলি অ্যাকাডেমির সদস্যরা। এদিনের বৈঠকে যোগ দেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ও। বৈঠকে স্থির হয়েছে, সব পক্ষকে নিয়ে একটি যৌথ কমিটি গঠন করা হবে। কমিটির উপদেষ্টা হিসাবে থাকবেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। কমিটিতে থাকছেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, নিসপাল সিং রাণে, শ্রীকান্ত মোহতা, লীনা গঙ্গোপাধ্যায়, মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, স্বরূপ বিশ্বাস প্রমুখ।
এদিন সকলের সঙ্গে আলোচনার পর মুখ্যমন্ত্রী জানান, আর্টিস্টদের দাবি মতো যাতে প্রতি মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে তাঁদের প্রাপ্য টাকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা যায় তা দেখবে এই কমিটি। ইতিমধ্যেই শিল্পী ও প্রযোজকদের মধ্যে অন্যান্য বিষয়ে যে চুক্তি হয়েছে বা যা নিয়ে মতান্তর রয়েছে সে সব নিয়েও আলোচনা করবে এই বিশেষ কমিটি। ভবিষ্যতে যাতে কোনও সমস্যা তৈরি না হয় তাও দেখা হবে।
শিল্পী-কলাকুশলী ও প্রযোজকদের মধ্যে বিবাদের জেরে গত শনিবার থেকে বন্ধ ছিল সব সিরিয়ালের শুটিং। সঠিক সময়ে ন্যায্য পাওনা ও কাজের নির্দিষ্ট সময় ১০ ঘন্টা করতে হবে, প্রয়োজনে ওভার টাইম করলে তারও টাকা দিতে হবে, মূলত এই ছিল শিল্পীদের দাবি। ফলে বাধ্য হয়েই রিপিট টেলিকাস্ট করতে হচ্ছিল চ্যানেল কর্তৃপক্ষকে। দর্শকরাও জানাচ্ছিলেন, টানা চার পাঁচ দিন ধরে রিপিট টেলিকাস্ট দেখতে দেখতে তাঁরা ক্লান্ত। সকলেই চাইছিলেন যত দ্রুত সম্ভব ফের শুরু হোক শুটিং। শেষ পর্যন্ত এই ইস্যুতে হস্তক্ষেপ করতে হয় মুখ্যমন্ত্রীকে। এদিন নবান্নর বৈঠকে অবশেষে জট কাটল টালিগঞ্জের শুটিং পাড়ার।

Comments
Loading...