জমি দখলে আদিবাসী গণহত্যা গ্রাম প্রধানের ভাড়াটে বাহিনীর, উত্তর প্রদেশে নির্বিচার গুলিবৃষ্টিতে মৃত ৯, আহত বহু

উত্তর প্রদেশে ফের আদিবাসী গণহত্যা। জমি দখলে বাধা পাওয়ায় গ্রামের প্রধানের দুষ্কৃতী বাহিনীর নির্বিচার গুলিবৃষ্টি। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু ৯ আদিবাসীর, জখম বহু। এই ঘটনায় প্রশ্ন উঠছে যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে। পাশাপাশি উত্তর প্রদেশে দলিত, সংখ্যালঘু, আদিবাসীদের নিরাপত্তা নিয়েও নতুন করে প্রশ্ন উঠছে।

জমি দখল ও খেতের ফসল কেটে নিতে বাধা দেওয়ায় গ্রাম প্রধানের ভাড়াটে গুন্ডা বাহিনীর গুলিতে মৃত্যু ৯ আদিবাসীর, জখম অন্তত ২০ জন। উত্তর প্রদেশের সোনভদ্রের উভা গ্রামের ঘটনা। সূত্রের খবর, বুধবার উভা গ্রামের প্রায় ৯০ বিঘা জমির দখল নিতে দলবল নিয়ে হাজির হয়েছিলেন গ্রাম প্রধান যজ্ঞ দত্ত। অভিযোগ, প্রধানের নির্দেশ মতো জমির ফসল কেটে নিতে শুরু করে কয়েকজন। কিন্তু কঠোর পরিশ্রম করে ফলানো ফসল হাতছাড়া করতে চাননি গোন্দ সম্প্রদায়ের আদিবাসী কৃষকরা। তারা প্রধানের বাহিনীকে বাধা দেন। দু’পক্ষে চলতে থাকে বচসা। অভিযোগ, এরপর আচমকাই আদিবাসী কৃষকদের লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি গুলি চালাতে শুরু করে যজ্ঞ দত্তের দুষ্কৃতী বাহিনী। গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান ৩ মহিলা সহ ৯ জন। কমপক্ষে ২০ জন গুলিতে জখম হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাঁদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা সঙ্কটজনক।

পুলিশ সূত্রে দাবি, বছর দুয়েক আগে এক আইএএস অফিসারের কাছ থেকে প্রায় ৯০ বিঘা জমি কিনেছিলেন ওই প্রধান। সেই জমির দখল নিতে গিয়েই এই গুলি চালনার ঘটনা। কিন্তু গ্রামবাসীদের অভিযোগ, এই জমি তাঁদের। জালিয়াতি করে এই জমি হাতিয়ে নিতে চান গ্রামের পঞ্চায়েত প্রধান। এর আগে একাধিকবার জমির দখল নিতে ব্যর্থ হয়ে, বুধবার প্রধানের দুষ্কৃতী বাহিনী তৈরি হয়েই এসেছিল বলে অভিযোগ গুলিতে জখম এক কৃষকের। তাঁর অভিযোগ, জমি দখলে আর ফসল কাটায় বাধা দিলেই গুলি চলবে, ভাড়াটে গুন্ডা বাহিনীকে এমনই নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রধান। ঘটনায় প্রধানের দুই ভাইপো গিরিজেশ দত্ত ও ভীমলেশ দত্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
এই ঘটনায় যোগী রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা ও পুলিশ প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। তাঁদের অভিযোগ, দলিত, সংখ্যালঘু ও আদিবাসীদের উপর উচ্চ বর্ণের অত্যাচার মাত্রা ছাড়িয়েছে বিজেপি শাসনে। কিন্তু তা রুখতে কার্যত নরম মনোভাব নিয়ে সরকারের নীতি পরিষ্কার করে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তাদের দাবি বিজেপির শাসনে ভয়াবহ নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন দলিত, সংখ্যালঘু, আদিবাসীরা।

Comments
Loading...