প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্র মামলায় ধৃত মানবাধিকার কর্মীদের স্বস্তি দিয়ে তাঁদের গৃহবন্দি থাকার মেয়াদ বাড়াল সুপ্রিম কোর্ট

পুণে পুলিশের হাতে ধৃত ভারভারা রাওসহ মানবাধিকার কর্মীদের স্বস্তি দিয়ে তাঁদের গৃহবন্দি থাকার সময়সীমা আগামী ১২ ই সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়ে দিল সুপ্রিম কোর্ট। এর আগে শীর্ষ আদালত তাঁদের ৬ ই সেপ্টেম্বর পর্যন্ত গৃহবন্দি রাখার নির্দেশ দিয়েছিল। বৃহস্পতিবার ফের এই মামলার শুনানি হয় শীর্ষ আদালতে। সেখানে ভারভারা রাও, ভার্ণন গঞ্জালভেজ, অরুণ ফেরেরা, সুধা ভরদ্বাজ এবং গৌতম নওলখাকে জিজ্ঞসাবাদের জন্য নিজেদের হেফাজতে নিতে আবেদন জানায় পুণে পুলিশ। পুলিশ আদালতে জানায়, ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা জরুরি এবং তাঁরা বাড়িতে থাকলে তদন্তে ক্ষতি হচ্ছে। কিন্তু পুণে পুলিশের এই আবেদন নাকচ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট।
পাশাপাশি এদিন পুণে পুলিশের সমালোচনাও করেছে দেশের শীর্ষ আদালত। ধৃত মানবাধিকার কর্মীদের সঙ্গে মাওবাদীদের যোগাযোগের যথেষ্ট প্রমাণ আছে দাবি করে যে সাংবাদিক বৈঠক পুলিশ করেছিল, তার জন্য সুপ্রিম কোর্ট মহারাষ্ট্র সরকারকে সমালোচনা করেন বিচারপতি। মহারাষ্ট্র সরকারের উদ্দেশে আদালত জানায়, পুলিশের আরও দায়িত্বশীল হওয়া উচিত।
দেশের একাধিক শহরে হানা দিয়ে কবি এবং মানবাধিকার কর্মী ভারভারা রাওসহ পাঁচ সমাজকর্মীদের দু’সপ্তাহ আগে গ্রেফতার করেছিল পুণে পুলিশ। পুলিশ দাবি করে, ভীমা-কোঁড়েগাওয়ে দলিত এবং উচ্চ বর্ণের সংঘর্ষের ঘটনায় জুন মাসেই কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। তাঁদের সঙ্গে মাওবাদীদের যোগাযোগের স্পষ্ট প্রমাণ মিলেছে। তাঁরা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে হত্যার ষড়যন্ত্রেরও শরিক। সেই তদন্তের সূত্র ধরেই ভারভারা রাওসহ পাঁচ সমাজকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়।

Comments
Loading...