ভারতে ভোডাফোনের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত, বললেন সংস্থার সিইও নিক রিড

দীর্ঘদিন ধরেই ভারতে প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে বেসরকারি টেলিকম সংস্থার ভোডাফোনের ব্যবসা, তার মধ্যে সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ পরিস্থিতি আরও জটিল করে তুলেছে বলে জানালেন এই টেলিকম সংস্থার সিইও নিক রিড।
২০১৮ সালে ভারতে আইডিয়া সেলুলারের ব্যবসা অধিগ্রহণ করেছে ভোডাফোন। ফলে বর্তমানে দেশের টেলিকম ক্ষেত্রে ভোডাফোন-আইডিয়ার মার্কেট শেয়ার দাঁড়িয়েছে  ৩০ শতাংশ। সংস্থার সূত্রে দাবি করা হচ্ছে, ভারত সরকার যদি চড়া হারে কর এবং অন্যান্য আর্থিক কড়াকড়ি চালাতে থাকে তাহলে এ দেশে ভোডাফোনের ব্যবসা প্রশ্নের মুখে পড়তে পারে ভবিষ্যতে।
বছরের প্রথম ছ’মাসে তাদের ১.৯ বিলিয়ন ইউরো ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে ভোডাফোনের তরফে। এর উপর সম্প্রতি ভারতের সুপ্রিম কোর্ট স্পেক্টার্ম চার্জ-সহ অন্যান্য বকেয়া এবং জরিমানা মিলিয়ে ভোডাফোন সহ কয়েকটি বেসরকারি টেলিকম সংস্থাকে বিপুল পরিমাণ অর্থ সরকারের কাছে জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছে। এই  টেলিকম সংস্থাগুলির মধ্যে ভোডাফোনের আর্থিক জরিমানার পরিমাণই সবচেয়ে বেশি। তাই এই নির্দেশের পর পরিস্থিতি আরও জটিল হয়েছে।
সংস্থার সিইও নিক রিড জানিয়েছেন, ২০১৮ সালে আইডিয়ার সঙ্গে হাত মেলাবোর পর বর্তমানে ভারতের টেলিকম বাজারের প্রায় ৩০ শতাংশ তাদের দখলে রয়েছে। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ এবং সরকারের বিভিন্ন কড়া নিয়ম এবং চড়া হারে কর পরিস্থিতি জটিল করে তুলছে। ইতিমধ্যে এ বিষয়ে সরকারের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে ভোডাফোনের তরফে। স্পেক্টার্ম চার্জ বাবদ দুই বছর মরেটোরিয়ামের জন্য সংস্থার তরফে কেন্দ্রের কাছে আবেদন করা হয়েছে। পাশাপাশি, আর্থিক জরিমানা ও  অতিরিক্ত বিপুল সুদসহ টাকা সরকারকে দেওয়ার যে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্ট দিয়েছে সে বিষয়ে সরকারের কাছে আবেদন করা হয়েছে ভোডাফোনের তরফের। সংস্থার তরফে স্বীকার করে নেওয়া হয়েছে যে এ দেশে তাদের ব্যবসার অবস্থা খুবই জটিল।
তবে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম এই টেলিকম সংস্থাটির ব্যবসা নিউজিল্যান্ড এবং ইউরোপ- আফ্রিকার  দেশগুলোতে বেশ ভালোভাবেই চলছে বলে দাবি করা হয়েছে এবং সে ক্ষেত্রে আর্থিক ফলাফলও সন্তোষজনক বলেই দাবি ভোডাফোনের।

 

Comments
Loading...