২৭ মার্চ প্রথম দফায় পশ্চিম মেদিনীপুরের ৬ আসনে ভোট, ২০১৬, ২০১৯ সালে কী ফল ছিল?

২৭ মার্চ বাংলায় শুরু বিধানসভা ভোট। মূলত পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া ও বাঁকুড়া জেলার মোট ৩০ আসনে ভোট। পশ্চিম মেদিনীপুরে ৬ আসনে ভোট। 

এক নজরে দেখে নেওয়া যাক, পশ্চিম মেদিনীপুরে কোন আসনে কী অবস্থা?

দাঁতন কেন্দ্রে ১৬ সালে জেতেন তৃণমূলের বিক্রমচন্দ্র প্রধান। লোকসভায় এই কেন্দ্রে ৭ হাজার ভোটে এগিয়ে বিজেপি।

এই আসনে এবার বিজেপি প্রার্থী শক্তিপদ নায়েক। তৃণমূলের হয়ে লড়ছেন বিক্রমচন্দ্র প্রধান। এই আসনে সিপিআই প্রার্থী শিশির পাত্র। 

কেশিয়ারি আসনে ১৬ সালে জয় পান তৃণমূলের পরেশ মুর্মু। ২০১৯ লোকসভায় এই আসনে ১১ হাজার ভোটে লিড করছে বিজেপি।

এই কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী সোনালি মুর্মু। তৃণমূলের হয়ে লড়বেন পরেশ মুর্মু। এই কেন্দ্রে সিপিএম প্রার্থী পুলিনবিহারী বাস্কে।  

খড়গপুর আসনে ২০১৬ সালে জিতেছিলেন বিজেপির দিলীপ ঘোষ। ২০১৯ সালে তিনি লোকসভা ভোটে দাঁড়ান। এই কেন্দ্রে বিজেপির লিড ৪৫ হাজারের বেশি। কিন্তু উপনির্বাচনে এই কেন্দ্রেই বিজেপি প্রার্থীকে হারিয়ে দেন তৃণমূলের প্রদীপ সরকার। 

এবারের ভোটে তৃণমূলের হয়ে লড়ছেন প্রদীপ সরকার। বিজেপির তারকা প্রার্থী হিরণ চ্যাটার্জি। বামেদের হয়ে এই কেন্দ্রে লড়বেন সিপিএমের শেখ সাদ্দাম আলি। 

গড়বেতা আসনে ২০১৬ সালে জিতেছিলেন তৃণমূলের আশিস চক্রবর্তী। ২০১৯ সালে এখানে প্রায় ৭ হাজার ভোটে এগিয়ে বিজেপি।

এই কেন্দ্রে এবার বিজেপির প্রার্থী মদন রুইদাস। তৃণমূলের টিকিটে লড়বেন উত্তরা সিংহ হাজরা। সিপিএমের প্রার্থী তপন ঘোষ। 

শালবণি আসনে ২০১৬ সালে জিতেছিলেন তৃণমূলের শ্রীকান্ত মাহাত। ২০১৯ সালে এই কেন্দ্রে ৮ হাজারের বেশি ভোটে এগিয়ে তৃণমূল।

এই আসনে এবার তৃণমূলের হয়ে লড়ছেন শ্রীকান্ত মাহাত। সিপিএমের হয়ে লড়বেন সুশান্ত ঘোষ। এই কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থী রাজীব কুণ্ডু। 

মেদিনীপুর আসনে ২০১৬ সালে জয় পান তৃণমূলের মৃগেন্দ্র মাইতি। লোকসভায় এই কেন্দ্রে ১৬ হাজারের বেশি ভোটে এগিয়ে বিজেপি।

এই কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থী হয়েছেন সমিত দাস। তৃণমূল টিকিট দিয়েছে তারকা জুন মালিয়াকে। এই কেন্দ্রে সিপিএম প্রার্থী তরুণকুমার ঘোষ। 

Comments
Loading...