আমাকে বন্দি করে মুক্তি দিক বিমান যাত্রীদের! যশবন্ত সিনহার স্মৃতিচারণে অদম্য মমতা

যশবন্ত সিনহার দাবি মমতা শুরুর দিন থেকেই একজন লড়াকু নেত্রী।

শনিবার তৃণমূলে যোগ দেন বিজেপির প্ৰাক্তন হেভিওয়েট নেতা তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী যশবন্ত সিনহা। তৃণমূলে যোগদানের আগে এদিন কালীঘাটের বাড়িতে গিয়ে দলনেত্রী মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে ৪৫ মিনিট কথা বলেন তিনি। যোগদান পর্ব শেষে সাংবাদিক বৈঠকে দলনেত্রীর সুরেই বলেন অটল বিহারী বাজপেয়ী জমানার বিজেপির সঙ্গে আজকের বিজেপির আকাশ পাতাল তফাৎ। এই জমানা বড্ড মোদী কেন্দ্রিক। মমতা ব্যানার্জি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি এক চমকপ্রদ ঘটনার কথা বলেন।

[আরও পড়ুন- কোন ফর্মুলায় বাজপেয়ী জমানার অর্থমন্ত্রী তৃণমূলে? জানেন যশবন্ত সিনহার পরিচয়?]

১৯৯৯ সাল। আজকের মুখমন্ত্রী তখন এনডিএ সরকারে রেলমন্ত্রী। ১৯৯৯ সালে ২৪ ডিসেম্বর ইন্ডিয়ান এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট ৮১৪, কাঠমান্ডু থেকে দিল্লি আসার পথে তালিবান জঙ্গিরা হাইজ্যাক করে। তোলপাড় পরে যায় দেশে। IC 814 প্লেনটি হাইজ্যাক করে জঙ্গিরা আফগানিস্থানের কান্দাহারে নিয়ে যায়। জঙ্গিদের হাতে বন্দি হন পাইলট সহ ১৭৬ জন যাত্রী। তাঁদের মুক্তি নিয়ে তখন দফায় দফায় উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক চলছে দিল্লিতে। কোনও পথ না বেরনোয় হতাশ প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীরা। সেই সময় তৎকালীন রেলমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি প্রস্তাব রাখেন তিনি কান্দাহার যেতে আগ্রহী। প্রধানমন্ত্রীকে তৃণমূল নেত্রী সরাসরি প্রস্তাব দেন, আমাকে কান্দাহার পাঠানো হোক। আমাকে পণবন্দি করার বিনিময়ে তালিবান ভারতীয় বন্দিদের মুক্তি দিক। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির প্রসঙ্গ বলতে গিয়ে প্লেন হাইজ্যাকের এই ঘটনাটি বলেন সাংবাদিকদের, সেই সঙ্গে তাঁর দাবি মমতা শুরুর দিন থেকেই একজন লড়াকু নেত্রী।

Comments
Loading...