চিনের বাধায় রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে এবারও নিষিদ্ধ তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা গেল না কুখ্যাত সন্ত্রাসবাদী তথা জৈশ প্রধান মাসুদ আজহারের নাম। এই ঘটনাই অস্ত্র তুলে দিয়েছে কংগ্রেসের হাতে। বৃহস্পতিবার কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী প্রধানমন্ত্রীকে দুর্বল বলে আক্রমণ করেন। ট্যুইটে রাহুল লিখেছেন, ‘দুর্বল মোদী আসলে জি জিনপিংকে ভয় পান। তাই চিন ভারতের বিরুদ্ধে কোনও কাজ করলেও তাঁর মুখ দিয়ে একটি কথাও বেরোয় না।‘

গত এক দশকে এই নিয়ে চতুর্থবার চিনের আপত্তিতে স্থগিত হয়ে গেল মাসুদ আজহারের নাম নিরাপত্তা পরিষদের নিষিদ্ধ জঙ্গি নেতার তালিকায় তোলার প্রক্রিয়া। পুলওয়ামায় ভয়াবহ ফিদায়েঁ হামলার পর ব্রিটেন ও ফ্রান্সকে সঙ্গে নিয়ে নিরাপত্তা পরিষদের নিষিদ্ধ জঙ্গি নেতার তালিকায় মাসুদ আজহারের নাম নথিভুক্ত করাতে উদ্যোগী হয় আমেরিকা। এই প্রথমবার এই তিনটি দেশ ছাড়া আরও বেশকিছু দেশ এই প্রস্তাবে সায় দেয়। কিন্তু শেষমুহূর্তে বেঁকে বসে চিন। সূত্রের খবর, প্রস্তাব পেশ করার এক ঘণ্টা আগে চিনের প্রতিনিধি জানান, এ বিষয়ে সিদ্ধান্তে আসতে তাদের আরও কিছু সময় প্রয়োজন। এরপরই ভেস্তে যায় পুরো প্রক্রিয়া। যদিও ২০০১ সালে রাষ্ট্র সঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে মাসুদের জঙ্গি সংগঠন জৈশ-ই-মহম্মদকে। কিন্তু মাসুদকে নিষিদ্ধ জঙ্গি তালিকায় ঢোকানোর কাজ থমকে রইল এবারও।

গোটা ঘটনায় তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করেছে ভারত। পাশাপাশি আমেরিকার এক কূটনীতিক কার্যত হুঁশিয়ারির সুরে বলেছেন, এভাবে বারবার বাধা দিয়ে, যেন অন্য রকম পদক্ষেপ নিতে বাধ্য করা না হয়। মার্কিন কূটনীতিকের বার্তা, প্রকৃতই সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে চাইলে বেজিং যেন পাকিস্তানের আশ্রয়ে থাকা জঙ্গিদের রক্ষা করার কাজ না করে।

২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে পঠানকোট বিমান ঘাঁটিতে জৈশ হানার পরও এভাবেই মাসুদ আজহারকে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের নিষিদ্ধ জঙ্গির তালিকায় ঢোকাতে বাধা দিয়েছিল চিন।

You may also like