করোনার মার: চলতি অর্থবর্ষে ঝাঁপ ফেলেছে ১০ হাজার সংস্থা! সবচেয়ে কম বাংলায়

করোনার মার যেন পিছু ছাড়ছে না অর্থনীতির। লকডাউনে দেখা গিয়েছিল একের পর এক সংস্থা বন্ধ হয়েছে, কাজ হারিয়েছেন লক্ষ লক্ষ মানুষ। এবার সেই সংক্রান্ত তথ্য দিল কেন্দ্র। লোকসভায় এক প্রশ্নের উত্তরে অর্থ মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর জানান, চলতি অর্থবর্ষে দেশে ১০ হাজারেরও বেশি সংস্থা পাকাপাকি ভাবে ঝাঁপ ফেলেছে। তাৎপর্যপূর্ণ ব্যাপার হল, করোনা পর্বে দেশে সবচেয়ে কম সংস্থা বন্ধ হয়েছে যে রাজ্যগুলোতে তার শুরুর দিকে আছে পশ্চিমবঙ্গ।

[আরও পড়ুন- বাংলার হস্তশিল্পের প্রচারে প্রাধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী]

অর্থ প্রতিমন্ত্রী কোন রাজ্যে কত সংস্থা বন্ধ হয়েছে তারও খতিয়ান দেন। তিনি জানিয়েছেন, বন্ধ হয়ে যাওয়া ১০ হাজার ১১৩টি সংস্থার মধ্যে দিল্লিতে রয়েছে ২ হাজার ৩৯৪ টি সংস্থা। উত্তরপ্রদেশে রয়েছে ১ হাজার ৯৩৬ টি সংস্থা। তামিলনাড়ুতে ১ হাজার ৩২২ টি সংস্থা বন্ধ হয়েছে। মহারাষ্ট্রে ১ হাজার ২৭৯ টি সংস্থা রয়েছে এরমধ্যে। এরপর কর্ণাটক ৮৩৬, চণ্ডীগড়ে ৫০১, রাজস্থানে ৪৭৯, তেলঙ্গানায় ৪০৪, কেরলে ৩০৭, ঝাড়খণ্ডে ১৩৭, মধ্যপ্রদেশে ১১১ এবং বিহারে ১০৪ টি সংস্থা ঝাঁপ বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছে।

অনুরাগ ঠাকুর আরও জানান, মেঘালয়ে ৮৮, ওড়িশায় ৭৮, ছত্তীসগঢ়ে ৪৭, গোয়ায় ৩৬, পুদুচেরিতে ৩১ এবং গুজরাতে ১৭টি সংস্থা বন্ধ হয়েছে। এই তালিকায় সবার নিচে আন্দামান ও নিকোবর। সেখানে ২ টি সংস্থা বন্ধ হয়েছে। অর্থ প্রতিমন্ত্রী সংসদে জানিয়েছেন, করোনার কোপে বাংলায় ৪ টি সংস্থায় তালা পড়েছে। যা অন্যান্য রাজ্যের তুলনায় বেশ কম।

Comments
Loading...