জেএনইউ-র উপাচার্যের অপসারণ দাবি করে রাষ্ট্রপতিকে চিঠি দিচ্ছেন ১০০ সাংসদ, ঘোষণা সীতারাম ইয়েচুরির

জেএনইউ-র উপাচার্যের অপসারণ চেয়ে একশোর বেশি সাংসদ চিঠি দিচ্ছেন রাষ্ট্রপতিকে, জানালেন সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি।
রবিবারের জেএনইউ হামলার পর উপাচার্য এম জগদেশ কুমারের ভূমিকা নিয়ে তীব্র নিন্দার ঝড় উঠেছে বিভিন্ন মহল থেকে। সিপিএম সাধারণ সম্পাদক। মঙ্গলবার জেএনইউ-র শিক্ষক সংগঠন ও ছাত্র সংসদের যৌথ সভায় উপাচার্যের নিন্দা করেন সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক ইয়েচুরি। তিনি জানান, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দকে একশোরও বেশি সাংসদ চিঠি দিয়ে উপাচার্যের অপসারণ চাইবেন। ওই সাংসদরা নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ করেছেন। তাঁরা সম্মিলিতভাবে জেএনইউ উপাচার্যের অপসারণ দাবি করে চিঠি দিচ্ছেন রাষ্ট্রপতি তথা জেএনইউ-র আচার্য রামনাথ কোবিন্দকে। কয়েক মিনিট ধরে হাততালি দিয়ে ইয়েচুরির এই ঘোষণাকে অভিনন্দন জানান আন্দোলনকারী পড়ুয়ারা।
প্রসঙ্গত, রবিবার জেএনইউ হামলার পর বিশেষ উচ্চবাচ্য করতে দেখা যায়নি উপাচার্য এম জগদেশ কুমারকে। বরং সব ভুলে গিয়ে পড়ুয়াদের ‘নতুন করে শুরু’ করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। তাঁর কথায়, ৫ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে যা ঘটেছে তা দুর্ভাগ্যজনক। জেএনইউ বিতর্ক, আলোচনার মধ্য দিয়ে যে কোনও ইস্যুর সমাধান বের করে নেয়। তিনি এও জানান, নতুন সেমেস্টারের রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়ে গিয়েছে। অতীত ভুলে গিয়ে পড়ুয়ারা যেন নতুন করে শুরু করে। এদিকে, রবিবার হামলার পর গুরুতর আহত ছাত্রনেত্রী ঐশী ঘোষ উপাচার্যের বিরুদ্ধেই আঙুল তুলেছেন। তাঁর অভিযোগ, উপাচার্যের প্রচ্ছন্ন মদতে এবিভিপি সমর্থকরা ক্যাম্পাস ও হস্টেলে ঢুকে পড়ুয়াদের উপর নির্মমভাবে হামলা চালায়। আহত হন শিক্ষকরাও। উপাচার্যের বিরুদ্ধে এই নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ এনে জেএনইউর বাম ছাত্র সংগঠন তাঁর পদত্যাগের দাবি করেছে। এবার সীতারাম ইয়েচুরি জানালেন, সাংসদরাও একই দাবি নিয়ে চিঠি দিচ্ছেন রাষ্ট্রপতিকে।

Comments
Loading...