অ্যামাজন থেকে গুগল, ওয়ালমার্ট থেকে জেপি মর্গান, লকডাউনের মধ্যেই ২ লক্ষ চাকরির সুযোগ

করোনার প্রভাবে দুনিয়াজুড়ে তৈরি হয়েছে চরম অর্থনৈতিক সঙ্কট। বেকারদের কর্মসংস্থানে নেতিবাচক প্রভাব। শুধু তাই নয়। অসংখ্য মানুষ চাকরি হারিয়েছেন।
কিন্তু জানেন কি, গত চার সপ্তাহে মোট দু’লক্ষ কর্মখালির বিজ্ঞাপন দিয়েছে বিভিন্ন সংস্থা। এর মধ্যে ২৫ শতাংশ চাকরির বিজ্ঞাপন প্রকাশিত হয়েছে কেবলমাত্র গত সপ্তাহে। কর্মখালির তথ্য ও বিভিন্ন সংস্থার কাছ থেকে পাওয়া খবরের ভিত্তিতে এমনটাই জানাচ্ছে LinkedIn।
সার্চ ফার্ম Xpheno এর থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ইংরেজি দৈনিক দ্য ইকনমিক টাইমস জানাচ্ছে, নিয়োগকারী সংস্থার মধ্যে অন্যতম অ্যামাজন, গুগল, টেক মাহিন্দ্রা, ওয়ালমার্ট ল্যাবস, ভিএমওয়্যার, আইবিএম, ক্যাপজেমিনি, জেপি মর্গান চেজ, ফ্লিপকার্ট, বাইজুস, গ্রোফার্স।
জানা গিয়েছে, মোট চাকরির ২০ শতাংশ, বেঙ্গালুরুতে, ৮ শতাংশ দিল্লি এবং ৭ শতাংশ চেন্নাইয়ে।

 

নতুন গ্র্যাজুয়েটদের জন্য সুখবর 

বিভিন্ন সংস্থা প্রায় ৮০ হাজার কর্মী নেবে এন্ট্রি-লেভেল পজিশনের। আর তার জন্য সদ্য স্নাতক, স্নাতকোত্তর ছেলেমেয়ের কাজের সুযোগ বিশাল। তাছাড়া জুনিয়র এবং মিড সিনিয়র পদের জন্য থাকছে ৪০ শতাংশ সুযোগ।
Xpheno-এর সমীক্ষা বলছে, এই কর্মখালির ৯১ শতাংশই ফুল-টাইম কাজ, বাকিগুলির মধ্যে আছে চুক্তিভিত্তিক ও পার্ট টাইম কাজের সুযোগ।

 

কোন সেক্টরে চাকরির সুযোগ বেশি? 

তথ্যপ্রযুক্তি (IT) এবং তথ্যপ্রযুক্তি সম্বন্ধীয় (ITeS) সংস্থায় ৭৯ শতাংশ কাজের সুযোগ। তারপরে রয়েছে ই-কমার্স, ব্যাঙ্কিং ও বিমা (BFSI)। সেখানে ১৫ শতাংশ কাজের সুযোগ।
সবচেয়ে বেশি পদ পূরণের জন্য বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছে, তার মধ্যে রয়েছে সিনিয়র সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়র, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়র, প্রোগ্রামার, ফুল-স্টাক ডেভেলপার ইত্যাদি। এরপর নন-টেকনিক্যাল কাজ যেমন, সেলস একজিকিউটিভের চাহিদা রয়েছে। লকডাউন উঠে কাজের স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরলে, তবেই এই সব ক্ষেত্রে কর্মী নিয়োগ হবে বলে জানাচ্ছেন একটি সংস্থার এইচআর।

 

বিরতি নেই নিয়োগে  

ডেলোয়েট (Deloitte)-এর চিফ ট্যালেন্ট অফিসার এস ভি নাথান সংবাদমাধ্যমকে জানান, কর্মী নিয়োগ প্রক্রিয়া কিন্তু থেমে নেই। সব সংস্থাই আগামী দিনের জন্য তৈরি করছে নিজেদের। সেই লক্ষ্যভেদের পরিকল্পনা অনুযায়ী এবং ক্লায়েন্টদের চাহিদা বুঝে কর্মী নিয়োগ করছি আমরা।
তবে ক্যাপজেমিনির এক মুখপাত্র জানান, ফ্রেশার্স ও অভিজ্ঞদের মধ্যেও এখন প্রতিযোগিতা তীব্র হবে।
এদিকে স্টার্ট আপ বিজনেসে অবস্থা কিছুটা খারাপ হলেও কর্মী নিয়োগ থেমে নেই। অনলাইন মুদিখানা বিগ বাস্কেট প্রায় ১০ হাজার কর্মী নেবে আগামী দিনে, গ্রোফার্স নামে একই পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা হাজার পাঁচেক কর্মী নেওয়ার কথা ভেবেছে।
সার্চ ফার্ম Xpheno এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা কমল কারন্থ বলেন, এই লকডাউন কিন্তু ই-লার্নিং, ই-টিউটরিং এর মতো ক্ষেত্রে ডিজিট্যাল ক্ষেত্রে যোগ্য কর্মীর চাহিদা তৈরি করেছে। কিছুদিনের মধ্যে স্কুলে স্কুলে নতুন শিক্ষাবর্ষ শুরু হচ্ছে। তাই এই ডিজিট্যাল প্ল্যাটফর্মেও কাজের সুযোগ বাড়বে। গেমিং, এডুটেক, ডিজিট্যাল কনটেন্ট- এইসব ক্ষেত্রে বড় কাজের সুযোগ তৈরি হচ্ছে।

Comments
Loading...