দেশের মানুষের স্বার্থ আগে, আপনার দাম্ভিকতা পরে, নিট-জেইই পিছনোর দাবিতে গান্ধী মূর্তি থেকে মোদীকে আক্রমণ অভিষেক ব্যানার্জির

করোনা কালে নিট-জেইই নিয়ে এবার সরাসরি মোদীকে কটাক্ষ ছুড়ে দিলেন অভিষেক ব্যানার্জি। বললেন, মানুষের জীবন সবচেয়ে আগে। কিন্তু নিজের দাম্ভিকতার সামনে মানুষের স্বার্থের কথা ভুলে যাচ্ছেন।

তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসের দিনই করোনা কালে নিট-জেইই পরীক্ষা নেওয়ার বিরোধিতায় আন্দোলন শুরু করেছে তৃণমূল। এদিন গান্ধী মূর্তির পাদদেশে ১ ঘণ্টার প্রতীকি অবস্থান বিক্ষোভ সমাবেশে যোগ দিয়েছিলেন যুব তৃণমূল সভাপতি। সেখান থেকেই কেন্দ্রের উদ্দেশে তীক্ষ্ণ আক্রমণ ছুঁড়ে দেন ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ। তিনি বলেন, আদালতের কাজ আদালত করেছে। কিন্তু আদালতকে সঠিক তথ্য দেওয়ার দায়িত্ব ছিল কেন্দ্রীয় সরকারের। অভিষেকের অভিযোগ, কেন্দ্র আদালতকে সঠিক তথ্য দেয়নি। তারপরই সরাসরি মোদী সরকারের দিকে আঙুল তুলে তিনি বলেন, দেশব্যাপী প্রায় ৩০ লক্ষ পরীক্ষার্থীর এই দুটি পরীক্ষায় বসার কথা। অর্থাৎ ১ কোটিরও বেশি মানুষ প্রত্যক্ষ কিংবা পরোক্ষভাবে এই পরীক্ষার সঙ্গে যুক্ত। মহামারি চলাকালীন এই হঠকারী সিদ্ধান্তের জেরে একজন পড়ুয়াও যদি বিপদে পড়েন, তাহলে তার দেয় নেবে কে? অভিষেক ব্যানার্জি বলেন, কেন্দ্র এ ব্যাপারে লিখিত দিক।

তৃণমূল সাংসদ মনে করেন, মাত্রাতিরিক্ত অহঙ্কার ও দম্ভের কারণেই সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের সুবিধা অসুবিধার দিকে তাকাতে পারছে না দেশের কেন্দ্রীয় সরকার। তাঁর প্রশ্ন, আপনি কি দেখতে পাচ্ছেন না রোজ ৮০ হাজার মানুষ সংক্রমিত হচ্ছেন, তাও কীসের দম্ভ?

এই প্রসঙ্গেই ফালাকাটার বিধায়কের মৃত্যুর পর ১০ মাস কেটে গেলেও সেখানে উপনির্বাচন হয়নি বলে দাবি করেন অভিষেক ব্যানার্জি। তিনি বলেন, আসলে বিজেপি বুঝতে পারছে সেখানে উপ নির্বাচন হলে তার ফল সুখকর হবে না। তাই ভোট বন্ধ। কিন্তু পরীক্ষা নিতে পণ করে বসে আছেন। তাতে ছাত্র ছাত্রীদের ভবিষ্যৎ নষ্ট হতে পারে, কোনও মায়ের কোল খালি হতে পারে, এটা ধর্তব্যের মধ্যেই আনা হচ্ছে না। এই পরিস্থিতিতে করোনা কালে নিট-জেইই পরীক্ষা নেওয়া যাবে না, এই দাবিতে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়ার নির্দেশ দেন অভিষেক ব্যানার্জি।

Comments
Loading...