দিলীপ ঘোষ-বাবুল সুপ্রিয় সংঘাত: অভিষেকের প্রশ্ন বিজেপি সভাপতিকে, গুলি করে মারার হুমকি আপনার মত, না দলের?

দিলীপ ঘোষ পরিষ্কার করুন, গুলি করে মারার হুমকি তাঁর নিজস্ব মতামত, নাকি দলের। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র ট্যুইট তুলে ধরে বিজেপিকে কটাক্ষ তৃণমূল সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জির। তিনি লিখলেন, দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্য অবশ্য তাঁর দলের মনোভাবের সঙ্গে খাপ খায়।
বিজেপি রাজ্য সভাপতির গুলি করে মারার হুমকির প্রেক্ষিতে প্রকাশ্যে চলে এসেছে দলের অভ্যন্তরীণ কোন্দল। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় জানিয়েছেন, যদি এরকম কোনও মন্তব্য দিলীপ ঘোষ করে থাকেন সেটা তাঁর রাজনৈতিক সংকীর্ণতা। দলের রাজ্য সভাপতিকে ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ বলতেও কসুর করেননি বাবুল। এই পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপিকে নিশানা করলেন তৃণমূলের যুব মোর্চার সভাপতি, সাংসদ অভিষেক। দিলীপ ঘোষকে নিয়ে বাবুল সুপ্রিয়র ট্যুইটটি রিট্যুইট করে তিনি কটাক্ষ করেন গেরুয়া শিবিরকে।
সোমবার দুপুর ২ টো ৫২ মিনিটে একটি ট্যুইটে অভিষেক লেখেন, যদিও দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্য তাঁর দলের সঙ্গে একেবারেই মানানসই। তবে তাঁর দলের সাংসদই এই মত খণ্ডন করেছেন। অভিষেকের মতে, রাজ্য বিজেপির শীর্ষ দুই নেতার প্রকাশ্য মতভেদ বাংলায় তাদের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়েই প্রশ্ন তুলে দিয়েছে।
এরপরেই দিলীপ ঘোষকে ট্যুইটারে উদ্ধৃত করে অভিষেক লেখেন, অনুগ্রহ করে দিলীপবাবু সবার কাছে পরিষ্কার করে দিন, আপনার ওই বক্তব্য একান্তই ব্যক্তিগত নাকি আপনার দলের অভিমত। ট্যুইটের শেষে দিলীপ ঘোষের উদ্দেশে জোড়হস্তের একটি ইমোজি দেন অভিষেক।

যদিও এই ট্যুইট নিয়ে দিলীপ ঘোষ অথবা বাবুল সুপ্রিয় কেউই এদিন বেলা পর্যন্ত প্রতিক্রিয়া দেননি।
প্রসঙ্গত, রবিবার নদিয়ার রানাঘাটে দলের এক সমাবেশে দিলীপ বলেন, এ রাজ্যে আমরা ক্ষমতায় এলে উত্তরপ্রদেশ, অসম, কর্ণাটক সরকারের মতো সরকারি সম্পত্তি ধ্বংসকারীদের ‘কুকুরের মতো’ গুলি করে মারব। বিজেপি রাজ্য সভাপতি যোগ করেন, আমরা ক্ষমতায় এলে লাঠি মারব, গুলি করব, জেলে পাঠাব। মমতা ব্যনার্জির সে মুরোদ নেই।
দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্য ঘিরে নিন্দার ঝড় উঠেছে বিভিন্ন মহলে। তাঁরই দলের মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় দিলীপকে ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ বলেছেন। দলের তরফে ড্যামেজ কন্ট্রোলে নেমে বাবুল জানান, দিলীপ ঘোষের মন্তব্য তাঁর একান্তই নিজস্ব। তাতে দলের কোনও দায়ভার নেই।

Comments
Loading...