কাঁথিতে অভিষেক, ডায়মন্ডহারবারে শুভেন্দু! একে অন্যের গড়ে সভা ঘিরে  সরগরম রাজ্য রাজনীতি

শুভেন্দু-অভিষেকের বাগযুদ্ধে কার্যত উত্তপ্ত বঙ্গ রাজনীতি

শীত ফিরে এলেও শুভেন্দু-অভিষেকের বাগযুদ্ধে কার্যত উত্তপ্ত বঙ্গ রাজনীতি। এতদিন দুজনেই বিভিন্ন সভা থেকে একে অপরকে বাছা বাছা শব্দে আক্রমণ করেছেন। এবারে যুযুধান দুই পক্ষ, শুভেন্দু ও অভিষেক একে অন্যের গড়ে গিয়ে সভা করবেন বলে খবর।
জানা যাচ্ছে, আগামী ২ ফেব্রুয়ারি অভিষেকের নির্বাচনীক্ষেত্র ডায়মন্ডহারবারে সভা করবেন শুভেন্দু অধিকারী। আর চার দিন পরে ৬ ফেব্রুয়ারি শুভেন্দুর গড় কাঁথিতে তার পাল্টা সভা করবেন তৃণমূলের যুব সভাপতি অভিষেক ব্যানার্জি।
 গত ১৯ ডিসেম্বর মেদিনীপুরের কলেজ মাঠে বিজেপিতে যোগদান করেই নন্দীগ্রামের প্রাক্তন বিধায়ক ‘তোলাবাজ ভাইপো’ বলে তীব্র আক্রমণ করেছিলেন অভিষেককে। তারপর প্রতিটি সভা থেকেই একই শব্দে তৃণমূলের যুবনেতাকে আক্রমণ করেছেন শুভেন্দু। চুপ করে থাকেননি অভিষেকও। সারদা কর্তা সুদীপ্ত সেনের বিতর্কিত চিঠিকে হাতিয়ার করে শুভেন্দুকে ঘুষখোর বলে তোপ দেগেছেন তৃণমূলের যুব সভাপতি। ঘুষখোর মন্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে সোমবার তমলুকের সভা থেকে অভিষেক ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে একাধিক চাঞ্চল্যকর অভিযোগ আনেন প্রাক্তন তৃণমূল নেতা। শুভেন্দুর অভিযোগ, অভিষেক ও তাঁর পরিবারের থাইল্যান্ডে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট রয়েছে।
কয়েকমাস আগে দলত্যাগের জল্পনা চলাকালীন নন্দীগ্রামের এক অরাজনৈতিক সভা থেকে ‘লিফটেও চড়িনি, প্যারাস্যুটেও নামিনি’ বলে নাম না করে অভিষেককে কটাক্ষ করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। প্রকাশ্যে সংঘাতের সূচনা তারপর থেকেই। শুভেন্দুর ওই পাল্টা কটাক্ষের জবাব দিতে গিয়ে তৃণমূল সাংসদ অভিষেক জানিয়েছিলেন, তিনি প্যারাস্যুটে নামলে ডায়মন্ডহারবারের বদলে দক্ষিণ কলকাতা থেকে ভোটে দাঁড়াতেন।
একুশের ভোটের মুখে এহেন হাইভোল্টেজ সভা থেকে তৃণমূলের প্রাক্তন ও বর্তমান  যুব নেতা একে অন্যের উদ্দেশ্যে কী বার্তা দেন সেটাই এখন দেখার বিষয়।
Comments
Loading...