অপসারিত সিবিআই প্রধান অলোক ভার্মার বিরুদ্ধে সোমবার তদন্ত রিপোর্ট পেশ সিভিসির, দেরি হওয়ায় অখুশি সুপ্রিম কোর্ট

অপসারিত সিবিআই প্রধান অলোক ভার্মার বিরুদ্ধে তদন্ত রিপোর্ট সোমবার সুপ্রিম কোর্টে জমা দিল সেন্ট্রাল ভিজিলেন্স কমিশন (সিভিসি)। তবে রিপোর্ট জমা দিতে দেরি হওয়ায় সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ এদিন কিছুটা বিরক্তি প্রকাশ করেন।
সুপ্রিম কোর্ট আগেই সিভিসিকে নির্দেশ দিয়েছিল, দু’সপ্তাহের মধ্যে ভার্মার বিরুদ্ধে তদন্ত করে বন্ধ খামে তা সুপ্রিম কোর্টে জমা দিতে হবে রবিবারের মধ্যে। সেই মতো, সোমবার মামলার শুনানির দিন ধার্য ছিল। কিন্তু রবিবারের পরিবর্তে সোমবার কোর্টে রিপোর্ট জমা দিল সিভিসি। এদিন সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা কোর্টে জানান, শনিবারের মধ্যেই তদন্ত রিপোর্ট তৈরি হয়ে গেলেও, তা জমা দিতে একদিন দেরি হয়ে গেছে। যা শুনে প্রধান বিচারপতি বলেন, আপনারা যাতে রিপোর্ট জমা দিতে পারেন সে জন্য রবিবারও কোর্ট খোলা ছিল। কিন্তু আপনারা এখন রিপোর্ট জমা দিচ্ছেন, এরপর আমরা কখন রিপোর্ট পড়ব, আর কখন শুনানি শুরু হবে! এই বলে প্রধান বিচারপতি জানান, মামলার পরবর্তী শুনানি হবে আগামী শুক্রবার, এর মাঝে তাঁরা রিপোর্ট পড়ে দেখবেন।


পড়ুনঃ তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা দুর্নীতির অভিযোগ সেন্ট্রাল ভিজিলেন্স কমিশনে অস্বীকার অপসারিত সিবিআই প্রধান অলোক ভার্মার


উল্লেখ্য, প্রায় এক মাস আগে পরস্পরের বিরুদ্ধে মাংস ব্যবসায়ী মইন কুরেশির অর্থ তছরূপ ও জালিয়াতি মামলায় ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ এনেছিলেন সিবিআই প্রধান অলোক ভার্মা ও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পদাধিকারী স্পেশাল ডিরেক্টর রাকেশ আস্থানা। রাকেশ আস্থানার বিরুদ্ধে কেসও শুরু করেছিল সিবিআই। সিবিআই-এর অন্দরে দুই শীর্ষ কর্তার এই নজিরবিহীন কোন্দলের জেরে প্রশ্ন ওঠে সিবিআই-এর বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়েই। ফলে হস্তক্ষেপ করতে হয় কেন্দ্রকে। আপাতত ভার্মা ও আস্থানা দু’জনকেই সিবিআই থেকে সরিয়ে ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। গত ২৬ অক্টোবর সিবিআই-এর মাথা থেকে ভার্মাকে সরিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র। এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধেই আদালতে আবেদন করেছিলেন অলোক ভার্মা। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্ট সিভিসি’কে নির্দেশ দেয়, অলোক ভার্মার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে, দু’সপ্তাহের মধ্যে তার তদন্ত শেষ করে রিপোর্ট জমা দিতে।

Comments
Loading...