অভিষেক: ‘যোগ্যকে স্বীকৃতি দিতে আমাকে পদ ছাড়তে হলেও দ্বিধা করব না’, বাংলার যুবশক্তি কর্মসূচির কাজ বেঁধে দিল তৃণমূল

লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ লক্ষ। কিন্তু কর্মসূচি ঘোষণার একমাসের সামান্য বেশি সময়ে রাজ্যজুড়ে আগ্রহীর সংখ্যা ছাপিয়ে গেল ৫ লক্ষের গণ্ডি। গত মাসের ১১ তারিখ বাংলার যুবশক্তি কর্মসূচির সূচনা করেছিলেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জি। শনিবার সকালে ফেসবুক লাইভে এসে তিনি বললেন, প্রত্যাশা ছাপিয়ে যুবক-যুবতীদের অংশগ্রহণে তাঁরা অভিভূত। এই কাজে যোগ্যদের স্বীকৃতি দিতে প্রয়োজনে নিজের পদ ছাড়তেও দ্বিধা করবেন না, জানিয়ে দিলেন অভিষেক। দিলেন পরবর্তী পর্যায়ের রূপরেখা।
আমপান ও করোনা, জোড়া বিপর্যয়ের বিরুদ্ধে লড়ছে বাংলা। এই অবস্থায় গত ১১ জুন বাংলার যুবশক্তি কর্মসূচির ঢাকে কাঠি পড়ে। যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক ব্যানার্জি সেদিন জানিয়েছিলেন, রাজনৈতিক দল মত নির্বিশেষে তরুণ প্রজন্মকে বাংলার মাটির স্বার্থে কাজে নামতে হবে। ডাক দিয়েছিলেন বাংলার যুবশক্তি ক্যাম্পেনে যোগ দেওয়ার। তারপর কেটে গিয়েছে এক মাসের সামান্য বেশি সময়। তার মধ্যে বিপুল সাড়া পেল অভিষেকের বাংলার যুবশক্তি কর্মসূচি।
শনিবার সকালে ফেসবুক লাইভে অভিষেক ব্যানার্জি জানালেন, ১ লক্ষের লক্ষমাত্রা ছাপিয়ে এখন সাড়ে ৫ লক্ষ যুবক-যুবতী যুবযোদ্ধা হতে চেয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। সাফল্যের বিচারে যা অভূতপূর্ব। এবার পরবর্তী লক্ষ্য, পথে নেমে মানুষের পাশে দাঁড়ানো।
কীভাবে কাজ করবেন বাংলার যুবযোদ্ধারা? তারও দিশানির্দেশ দিয়েছেন ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ। প্রত্যেক যুবযোদ্ধাকে এলাকার ১০ টি বাড়ি চিহ্নিত করতে হবে। আগামী দিনে সেই ১০ টি পরিবারের সমস্ত বিপদ আপদে পাশে থাকতে হবে যুবযোদ্ধাকে। কোনও সমস্যা সমাধান করতে না পারলে জানাতে হবে উপর মহলকে। নিজে গোটা প্রক্রিয়ার উপর নজর রাখবেন অভিষেক ব্যানার্জি। এ জন্য তৈরি হচ্ছে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম। যেখানে রাজ্যের যুবযোদ্ধারা নিয়মিত যোগাযোগ রাখবেন।
অভিষেক ব্যানার্জি বলেন, মানুষের পাশে থাকার এই কাজে যোগ্যদের খুঁজে বের করে স্বীকৃতি দেওয়াই তাঁর প্রধান কাজ। এবং তারপরই বলেন, যোগ্যদের মর্যাদা দিতে প্রয়োজনে নিজের পদ ছেড়ে দিতেও দ্বিধা করবেন না তিনি।
এই মুহূর্তের অংশগ্রহণের হিসেবে প্রত্যেক যুবযোদ্ধা যদি ১০ টি করে বাড়ির দায়িত্ব নেন, তাহলে পাটিগণিতের হিসেবে রাজ্যের ৫০ লক্ষ বাড়িতে পৌঁছবেন যুবযোদ্ধারা। পরবর্তীতে যোদ্ধার সংখ্যাও বাড়বে, স্বভাবতই বাড়বে পরিবারের সংখ্যাও।
এদিন বিশ্বে করোনা সংকট নিয়েও কথা বলেন অভিষেক ব্যানার্জি। তাঁর কথায়, যে সমস্ত ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশকর্মী, প্রশাসনের কর্মী, সংবাদমাধ্যমের কর্মীরা নিজের জীবন বিপন্ন করে আমাদের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত রাখার লড়াই করছেন তাঁদের ধন্যবাদ জানানোর ভাষা নেই। তাঁদের নতমস্তকে প্রণাম জানাই।
পাশাপাশি অভিষেক ব্যানার্জি বলেন, বাংলা যেমন নবজাগরণ ও স্বাধীনতা আন্দোলনে দেশকে পথ দেখিয়েছে, তেমনই লক্ষ্যে অবিচল থাকলে এবারও বাংলার জয় অবশ্যম্ভাবী। কোনও অশুভ শক্তি বা করোনা বাংলার মাথা নত করতে পারবে না।

Comments
Loading...