আগেই করোনাকে চিনা ভাইরাস বলে অভিযোগ করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। করোনাভাইরাসকে কেন্দ্র করে চিন আমেরিকার ঠান্ডা লড়াই অব্যাহত। এর মধ্যে কোভিড ১৯  ভ্যাকসিন সংক্রান্ত তথ্য চুরির চেষ্টা করছে চিনা হ্যাকাররা, এমনই চাঞ্চল্যকর দাবি তুললেন মার্কিন গবেষকরা। অভিযোগ, আমেরিকার বায়োটেক সংস্থা মডার্না-র করোনা প্রতিষেধক সংক্রান্ত তথ্য হাতানোর চেষ্টা করছে

চিন সরকারের সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে যুক্ত কিছু সাইবার হ্যাকার। প্রসঙ্গত, বিশ্বব্যাপী যে সংস্থাগুলি করোনা টিকা প্রস্তুতিতে উল্লেখযোগ্য ভাবে এগিয়ে চলছে তার মধ্যে অন্যতম নাম আমেরিকান বায়োটেক সংস্থা মডার্না। আগামী জানুয়ারিতেই তাদের ভ্যাকসিন বাজারে আনতে পারে বলে জানিয়েছে ম্যাসাচুসেটসে অবস্থিত এই বায়োটেক সংস্থা। কিন্তু তার আগে ছন্দপতন। তাদের গবেষণা সংক্রান্ত তথ্য চুরির চেষ্টায় চিনকে তীব্র আক্রমণ করলেন মার্কিন সাইবার বিশেষজ্ঞরা।

আমেরিকার ফেডেরাল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন এবং সাইবার সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন যে, হ্যাকারদের কাজে লাগিয়ে করোনা ভ্যাকসিন গবেষণা সংক্রান্ত তথ্য চুরি করার চেষ্টা চালাচ্ছে চিনের কিছু হ্যাকার। আর তাদের সঙ্গে সরাসরি যোগ রয়েছে চিন সরকারের। ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এবং নিউ ইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এমনটাই দাবি করা হয়েছে।

যদিও যাবতীয় অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছে চিন। চিনের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান এই অভিযোগ খারিজ করে জানান চিন সাইবার হামলার বিরোধী। তিনি আরও বলেন, করোনার চিকিৎসা ও ভ্যাকসিন বিষয়ে গবেষণায় আমরা নিজেরাই অনেক এগিয়ে রয়েছি। চিনের বিরুদ্ধে এই ধরনের ভিত্তিহীন অভিযোগ আনা অত্যন্ত অনৈতিক বলেও মন্তব্য করেন ঝাও।

করোনা মহামারির লড়াইতে ট্রাম্প প্রশাসন বড় বাজি রেখেছে এই মডার্না-র ভ্যাকসিন প্রস্তুতির উপর। প্রায় অর্ধ বিলিয়ন ডলার তারা মডার্না-র ভ্যাকসিন উন্নতিকরণে বিনিয়োগ করেছে। শুধু তাই নয়, এই মাসে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য ৩০ হাজার স্বচ্ছাসেবী জোগাড় করতেও সহায়তা করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। অন্যদিকে চিন থেকে প্রথম ছড়ানো এই মারণ ভাইরাসকে বাগে আনতে দীর্ঘ গবেষণা চালাচ্ছে শি জিনপিং প্রশাসনও। সরকার, মিলিটারি এবং প্রাইভেট সেক্টর একযোগে এই মহামারি প্রতিহতের ওষুধ খুঁজছে। এই গুরুতর পরিস্থিতিতে সাইবার হানা নিয়ে চিনা সরকারের বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ আনল আমেরিকা।

 

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us