‘বাংলার সঙ্গে জার্মানির রক্তের সম্পর্ক’, ফ্রাঙ্কফুর্টে শিল্প সম্মেলনে স্থানীয় শিল্পপতিদের রাজ্যে আহ্বান মুখ্যমন্ত্রীর। কী বললেন, দেখুন ভিডিও

জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্টে দাঁড়িয়ে এ দেশের সঙ্গে বাংলার ঐতিহ্যশালী সম্পর্কের কথা বলে এখানকার শিল্পপতিদের রাজ্যে বিনিয়োগের আহ্বান জানালের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার ফ্রাঙ্কফুর্টের জুমেইরাহ হোটেলে রাজ্যের বিনিয়োগের সম্ভাবনা নিয়ে সে দেশের শিল্পপতিদের সম্মেলনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, বাংলার সঙ্গে জার্মানির রক্তের সম্পর্ক। নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু বিয়ে করেছিলেন জার্মানকে। নেতাজির মেয়ে অনিতা পাফ। জার্মানির শিল্পপতিদের উদ্দেশে তাঁর আহ্বান, আসুন, আপনারা বাংলায় লগ্নি করুন। এই মুহূর্তে বাংলাই শিল্প বিনিয়োগের জন্য দেশের সেরা গন্তব্য।

রাজ্যে বিনিয়োগ আনতে রবিবার ভোরে কলকতা থেকে রওনা দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর এবারের সফরের উদ্দেশ্য মূলত জার্মানি এবং ইতালির শিল্পপতিদের বাংলায় আমন্ত্রণ জানানো। গত শিল্প সম্মেলনে বিভিন্ন দেশ থেকে বহু প্রতিনিধি কলকাতায় গিয়েছিলেন। তার সূত্র ধরেই এবার তাঁর এই সফর। এদিন সম্মেলনের শুরুতেই স্বাগত ভাষণ দেন জার্মানিতে কর্মরত ভারতীয় অ্যাম্বাসাডর মুক্তা দত্ত টোমার। তারপর বাংলা এবং রাজ্যের শিল্প সম্ভাবনা নিয়ে একটি বিশেষ চলচ্চিত্র দেখানো হয়। গত কয়েক বছরে রাজ্যে যে বিপুল উন্নয়ন হয়েছে, তাই তুলে ধরা হয় এই চলচ্চিত্রে। জার্মানির বিভিন্ন প্রথম সারির বৃহৎ, মাঝারি এবং ক্ষুদ্র সংস্থার প্রতিনিধিরা যোগ দেন এদিনের সম্মেলনে। রাজ্যে শিল্পের সামগ্রিক পরিকাঠামো তুলে ধরেন অর্থ এবং শিল্পমন্ত্রী অমিত মিত্র। এরপর ভাষণ দিতে উঠে জার্মান ভাষায় কথা বলে এদেশের শিল্পপতিদের মন জয় করে নেন মুখ্যমন্ত্রী। এদেশের প্রত্যেক মানুষকে বাংলার পরিবারের অংশ হিসেবে বর্ণনা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেন, এই দেশের সঙ্গে বাংলার রক্তের সম্পর্ক। আমরা সবাই একটা পরিবার। বাংলায় বিনিয়োগ করলে জমি থেকে বিদ্যুৎ কোনও কিছুতেই কোনও সমস্যা হবে না বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, বাংলার পরিকাঠামো এখন দেশের সেরা। বহু নতুন সংস্থা সেখানে আসছে। বিশেষ শিল্পবান্ধব পরিবেশ গড়ে তুলতে একাধিক উদ্যোগ নিয়েছে তাঁর সরকার। বলেন, ধর্মঘট, বনধ এখন বাংলায় অতীত। বাংলায় কোনও শ্রম দিবস নষ্ট হয় না। মুখ্যমন্ত্রীর আবেগঘন ভাষণে রীতিমতো আপ্লুত এই দেশের বণিক প্রতিনিধিরা।

এদিনের সম্মেলন থেকে রাজ্যে বিনিয়োগের অনেক নতুন দরজা খুলবে বলে আশাবাদী মুখ্যমন্ত্রী। এই দেশের শিল্পপতিদের অমিত মিত্র আশ্বাস দেন, বাংলায় বিনিয়োগ করতে আগ্রহীদের এক জানলা নীতির মাধ্যমে বিশেষ সুবিধে দিতে বদ্ধপরিকর রাজ্য। একদিনে শিল্পের জন্য প্রয়োজনীয় সমস্তরকম অনুমতি দেবে রাজ্য।

Comments
Loading...