তালডাংরায় অমিয়, নারায়ণগড়ে তাপস, ঝাড়গ্রামে মধুজা, রানিবাঁধে দেবলীনা! ৩ মার্চ প্রথম দু’দফার প্রার্থী তালিকা ঘোষণা বামেদের

ব্রিগেড মিটতেই জোরকদমে প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করতে ব্যস্ত আলিমুদ্দিন। সূত্রের খবর, ৩ মার্চ প্রথম দু’দফা ভোটের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হবে। তালিকায় থাকতে চলেছে অমিয় পাত্র, তাপস সিনহা, মধুজা সেন রায়, দেবলীনা হেমব্রমদের নাম।

সিপিএম সূত্রের খবর, বাঁকুড়ের তালডাংরা কেন্দ্র থেকে এবারও লড়াই করবেন অমিয় পাত্র। ঝাড়গ্রাম কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হচ্ছেন ছাত্র নেত্রী মধুজা সেন রায়। সূর্যকান্ত মিশ্রর আসন নারায়নগড় থেকে প্রার্থী হচ্ছেন প্রাক্তন যুব নেতা তাপস সিনহা। রানিবাঁধ থেকেই ফের লড়বেন দেবলীনা হেমব্রম।

২৭ মার্চ প্রথম দফায় ৩০ টি আসনের ভোটগ্রহণ হবে পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম, পূঃ মেদিনীপুরে (পার্ট- ১), পঃ মেদিনীপুর (পার্ট- ১)-এ।
১ এপ্রিল দ্বিতীয় দফাতেও ৩০ আসনে ভোটগ্রহণ হবে পঃ মেদিনীপুর (পার্ট- ২), পূঃ মেদিনীপুর (পার্ট- ২), দক্ষিণ ২৪ পরগনা (পার্ট- ১)-এ। সেই কারণে এই দু’দফার ভোটে চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করতে চলেছে বাম নেতৃত্ব।

গত বিধানসভা নির্বাচনেও বাঁকুড়ার তালডাংরা থেকে লড়াই করেছিলেন অমিয় পাত্র। কিন্তু তৃণমূলের সমীর চক্রবর্তীর কাছে হেরে যান তিনি। ১৯৮৭ ও ১৯৯১ সালে তালডাংরা কেন্দ্র থেকে বিধানসভায় লড়াই করেছিলেন অমিয় পাত্র। দু’বারই জিতেছিলেন। ২০১৮ সাল থেকে দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অমিয় পাত্র। ১৯৯৫ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত টানা প্রায় ২০ বছর সিপিএমের বাঁকুড়া জেলা সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। এবার আবার অমিয় পাত্রকে লড়াইয়ের ময়দানে নামাতে চলেছে আলিমুদ্দিন।

সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক হওয়ার পর আর ভোটে দাঁড়াতে চান না সূর্যকান্ত মিশ্র। সিপিএমের রাজ্য কমিটির সদস্য তাপস সিনহার লড়াই করার কথা নারায়ণগড় কেন্দ্র থেকে। একদা সূর্যকান্ত মিশ্রের গড় বলে পরিচিত নারায়ণগড় থেকে প্রার্থী হতে পারেন তাপস। ২০১৪ সালে কাঁথি লোকসভা কেন্দ্রে বামেদের প্রার্থী হয়েছিলেন তাপস সিনহা। ২০১৬ সালেও সিপিএম প্রার্থী হিসেবে লড়াই করেন তাপস সিনহা।

নিজের বাড়ি ঝাড়গ্রাম থেকে সিপিএম প্রার্থী হতে পারেন মধুজা সেন রায়। ২০১৬ সালে টালিগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রে দাঁড়িয়েছিলেন মধুজা। কিন্তু অরূপ বিশ্বাসের কাছে হেরে যান তিনি। সেবার কথা উঠেছিল, নিজের বাড়ি ঝাড়গ্রামের বদলে কেন কলকাতায় প্রার্থী করা হল মধুজাকে? এবার নিজের এলাকা ঝাড়গ্রাম থেকে প্রার্থী হতে চলেছেন ছাত্র নেত্রী মধুজা সেন রায়।

বাঁকুড়ার রানিবাঁধের ৩ বারের বিধায়ক তথা ব্রিগেড কাঁপিয়ে দেওয়া বাম নেত্রী দেবলীনা হেমব্রমকে প্রার্থী করতে চলেছেন বাম নেতৃত্ব। ১৯৯৬, ২০০৬, ২০১১ সালে এই কেন্দ্র থেকে জয়ী হয়েছিলেন দেবলীনা। বাম আমলে টানা তিনবার উপজাতি বিষয়ক মন্ত্রীর পদ সামলেছিলেন তিনি।

ব্রিগেড শেষ হওয়ার পরই প্রার্থী নিয়ে তোড়জোড় শুরু হয়েছে মুজফফর আহমেদ ভবনে। আগেই জানা গিয়েছিল, জয়ী প্রার্থীরা টিকিট পাবেন। অগ্রাধিকার দেওয়া হবে তরুণ প্রজন্মকে। পাশাপাশি জানা যাচ্ছে, অমিয় পাত্রর মতো সিনিয়ার নেতাদেরও ভোটে লড়াইয়ে নামাতে চান সূর্যকান্ত মিশ্র, বিমান বসু, মহম্মদ সেলিমরা।

Comments
Loading...