প্রথম দফার ভোটে কংগ্রেসের ৪২ এবং বিজেপির ৩৬ শতাংশ প্রার্থীর বিরুদ্ধে রয়েছে ফৌজদারি মামলা, ৪০১ জন প্রার্থীই কোটিপতি

দেশে প্রথম দফার লোকসভা ভোট ১১ ই এপ্রিল। ভোট হবে দেশের ৯১ টি লোকসভা কেন্দ্রে। এই প্রেক্ষিতেই প্রথম দফার ভোটে গোটা দেশে যত জন মনোনয়ন জমা দিয়েছেন তাঁদের হলফনামার ওপর ভিত্তি করে প্রার্থীদের সম্পত্তির পরিমাণ এবং তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ নিয়ে একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্রাটিক রিফর্মস (এডিআর)।
১১ ই এপ্রিল মোট ১২৭৯ জন প্রার্থীর ভোট-ভাগ্য ইভিএম বন্দি হবে। ১২৭৯ জন প্রার্থীর মধ্যে ১২৬৬ জন প্রার্থীর বিরুদ্ধে পুলিশের খাতায় কী কী মামলা রয়েছে, তা খতিয়ে দেখে একটি রিপোর্ট তৈরি করেছে এডিআর। বাকি ১৩ জন প্রার্থীর হলফনামা এখনও হাতে আসেনি এডিআরের। তাই তাঁদের বাদ রাখা হয়েছে।
রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে, ১২৬৬ জনের মধ্যে ২১৩ জন প্রার্থীর বিরুদ্ধে রয়েছে ফৌজদারি মামলা। অর্থাৎ মোট প্রার্থীর ১৭ শতাংশ। মারাত্মক ফৌজদারি অপরাধের মামলায় নাম জড়িয়েছে ১৪৬ জনের, যা প্রথম দফার ভোটের মোট প্রার্থীর ১২ শতাংশ। রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে, প্রথম দফার ভোটে লড়াই করছেন এমন প্রার্থীদের মধ্যে ৩২ শতাংশই কোটিপতি, সেই সংখ্যাটা ৪০১। প্রথম দফার ভোটে লড়াই করা প্রার্থীদের গড় সম্পত্তির পরিমাণ ৬.৬৩ কোটি টাকা।
এডিআরের রিপোর্টে আরও দেখা যাচ্ছে, প্রথম দফার ভোটের প্রার্থীদের মধ্যে ১৬ জনের বিরুদ্ধে রয়েছে ধর্ষণ অথবা মহিলা নিগ্রহের মতো মামলা। ১২ জন প্রার্থীর বিরুদ্ধে রয়েছে উস্কানিমূলক ভাষণ দেওয়ার মামলা। ১২৬৬ জনের মধ্যে খুনের মামলা রয়েছে ১০ জনের বিরুদ্ধে।
কোন রাজনৈতিক দলের কতজন প্রার্থীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা চলছে, তাও উঠে এসেছে এডিআরের রিপোর্টে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, প্রথম দফার ৯১ টি আসনে বিজেপির ৮৩ জন প্রার্থীর মধ্যে ৩০ জনের বিরুদ্ধে রয়েছে ফৌজদারি মামলা, যা শতকরা ৩৬ শতাংশ। একইভাবে কংগ্রেসের ৮৩ জন প্রার্থীর মধ্যে ৩৫ জন, অর্থাৎ ৪২ শতাংশের বিরুদ্ধে রয়েছে ফৌজদারি মামলা। পাশাপাশি, বিজেপির ৮৩ জনের মধ্যে ১৬ জনের বিরুদ্ধে রয়েছে গুরুতর ফৌজদারি মামলা। কংগ্রেসের ক্ষেত্রে সেই সংখ্যাটা আরও বেশি, ২২। মোট ৯১ টি কেন্দ্রে ভোট হবে প্রথম দফায়। এই ৯১ টি কেন্দ্রের মধ্যে ৩৭ টি কেন্দ্রেই রেড অ্যালার্ট ঘোষণা করা হয়েছে। রেড অ্যালার্ট কেন্দ্রের অর্থ হল, যে কেন্দ্রে এমন ৩ বা তার বেশি প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন, যাঁদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা রয়েছে।
প্রথম দফার ভোটে লড়ছেন এমন প্রার্থীদের মধ্যে সবচেয়ে বড়লোক কে? সবচেয়ে কম কার সম্পত্তি? তাও রিপোর্টে উল্লেখ করেছে এডিআর। রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে, তেলঙ্গানার চেভেল্লা কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী কোন্ডা বিশ্বেশ্বর রেড্ডি সম্পত্তির পরিমাণে সবচেয়ে এগিয়ে। তাঁর মোট সম্পত্তির পরিমাণ ৮৯৫ কোটি টাকারও বেশি। এই কেন্দ্রেই প্রেম জনতা দলের প্রার্থী হিসেবে কোন্ডা বিশ্বেশ্বরকে টক্কর দেবেন নাল্লা প্রেমকুমার। তাঁর সম্পত্তি সবচেয়ে কম। এডিআরের রিপোর্ট বলছে, নাল্লা প্রেমকুমারের মোট সম্পদের পরিমাণ মাত্র ৫০০ টাকা। আয়ের নিরিখে অবশ্য এক নম্বরে গুন্টুরের টিডিপি প্রার্থী জয়দেব গাল্লা, তাঁর বার্ষিক আয় ৪০ কোটি টাকা। স্ত্রী ও তাঁর মিলিত বার্ষিক আয় ৪৩ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে।

Comments
Loading...