দিল্লি-অন্ধ্রের মধ্যে চলছে ‘দুধ দুরন্ত স্পেশাল ট্রেন’, বাংলাতেও এমন বিশেষ ট্রেন চালাতে আগ্রহী পূর্ব রেল

চাহিদা আছে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে শুধু সময় মতো সরবরাহ করা যাচ্ছে না বলে নষ্ট হচ্ছিল প্রচুর দুধ। এই পরিস্থিতিতে অন্ধ্র থেকে দিল্লি, কেবলমাত্র দুধ পরিবহণের জন্য বিশেষ ট্রেন চালু করেছে দক্ষিণ-মধ্য রেল। যে ট্রেনের নাম রাখা হয়েছে ‘দুধ দুরন্ত স্পেশাল ট্রেন’।

অতিমারির মধ্যে দুধের সরবরাহে যাতে খামতি না হয় তার জন্যই এই স্পেশাল ট্রেন চালানো হচ্ছে। সেই ট্রেনে ইতিমধ্যেই ৪ কোটি লিটার দুধ সরবরাহ করা হয়েছে বলে খবর।

এ রাজ্যের দুধ উৎপাদকরা আগ্রহী হলে আগামী দিনে হাওড়া বা শিয়ালদহ শাখাতেও এমন ট্রেন চালু করতে পারে পূর্ব রেল।

আগে যাত্রীবাহী ট্রেনের সঙ্গে ট্যাঙ্ক লাগিয়ে এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে দুধ সরবরাহ করত রেল। তবে অতিমারি পরিস্থিতিতে যাত্রীবাহী ট্রেন বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর আস্ত একটি ট্রেন চালু হয় যা, শুধু দুধ নিয়ে দেশের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে ছুটবে। লকডাউন পর্বে দুধ উৎপাদকদের প্রস্তাব মেনে গত ২৬ মার্চ অন্ধ্র প্রদেশ থেকে দিল্লির মধ্যে শুরু হয় দুধ দূরন্ত স্পেশাল ট্রেন চলাচল। শুরুর দিকে ছ’টি দুধের ট্যাঙ্কার নিয়ে চলাচল করত ট্রেনটি। প্রতিটি ট্যাঙ্কারে ৪০ হাজার লিটার দুধ বহন করা হতো। বর্তমানে ট্যাঙ্কারের সংখ্যা বাড়িয়ে আট করা হয়েছে বলে রেল সূত্রে খবর। ঘণ্টায় ১১০ কিলোমিটার বেগে ছুটে চলা এই ট্রেন অন্ধ্রের রানিগুন্টা স্টেশন থেকে দুধ নিয়ে রাজধানীর হজরত নিজামুদ্দিন স্টেশনে পৌঁছে যাচ্ছে মাত্র ৩৬ ঘণ্টায়। 

শোনা যাচ্ছে এ রাজ্যেও দুধ ব্যবসায়ীদের সুবিধায় চালানো হতে পারে এমন ট্রেন। এ প্রসঙ্গে পূর্ব রেলের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, এমনিতে শিয়ালদহ ও হাওড়া শাখায় পণ্যবাহী ট্রেন নির্দিষ্ট সময় মেনে চলছে। তবে রাজ্যের দুধ উৎপাদকরা স্পেশাল ট্রেন চালানোর প্রস্তাব নিয়ে এলে আমরা তা গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করব।

Comments
Loading...