ভারতে সম্পত্তি বেচে পাকিস্তানের জঙ্গি গোষ্ঠীকে অর্থ সাহায্য! জম্মুর ব্যবসায়ীর কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত ইডির

দেশের মাটিতে থাকা সম্পত্তি কাজে লাগিয়ে চলত পাকিস্তানের ভারত বিরোধী জঙ্গি সংগঠনগুলিকে অর্থ সাহায্যের কাজ। কাশ্মীর উপত্যকায় জঙ্গি গোষ্ঠীগুলিকে অর্থ সাহায্যের তদন্তে নেমে গুরুগাঁওয়ে এক কাশ্মীরি ব্যবসায়ীর তেমনই প্রায় ১ কোটি ৩ লক্ষ টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার প্রক্রিয়া শুরু করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। সূত্রের খবর, আদতে জম্মুর বাসিন্দা জাহুর আহমেদ ওয়াতালি নামে এক ব্যবসায়ী উপত্যকার জঙ্গি সংগঠনগুলিকে অর্থ সাহায্য করত। সম্প্রতি লস্কর-ই-তৈবা প্রধান হাফিজ সৈয়দের বিরুদ্ধে একটি মামলায় চার্জশিট দেয় এনআইএ। সেই চার্জশিটে থাকা তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে গুরুগাঁওয়ের সম্পত্তির হদিশ পায় ইডি।
ওয়াতালির বিরুদ্ধে স্পেশাল প্রিভেনশন অফ মানি লন্ডারিং অ্যাক্টে (পিএমএলএ) মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তাঁকে গ্রেফতারির প্রক্রিয়া চলছে বলে জানা গিয়েছে।
ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি (এনআইএ) এক তদন্তে জানতে পারে অল পার্টি হুরিয়ত কনফারেন্স (এপিএইচসি) সহ বেশ কয়েকটি বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন উপত্যকার সাধারণ মানুষকে দেশ ও সরকারের বিরুদ্ধে উসকানি দিয়ে চলেছে। উপত্যকার যুবক-যুবতীরাই মূলত তাদের টার্গেট। মিটিং-মিছিল, সোশ্যাল মিডিয়া, সংবাদ মাধ্যমে ভারত বিরোধী প্রচার চালাত বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলি। এই সংগঠনগুলিকে সাহায্য করেন জাহুর আহমেদ ওয়াতালি সহ দেশেরই বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ী, বলে তদন্তে প্রকাশ।
ব্যবসায়ী জাহুর আহমেদ ওয়াতালি, লস্কর প্রধান হাফিজ সৈয়দ, হিজবুল প্রধান সালাউদ্দিন সহ ন’জনের বিরুদ্ধে সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণার অভিযোগ এনেছে এনআইএ। কাশ্মীর উপত্যকায় অশান্তি পাকানোর চেষ্টারও অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।
এনআইএ-এর চার্জশিটে সন্দেহ প্রকাশ করা হয়েছে, পাকিস্তানের আইএসআই এবং দুবাই থেকেও ব্যবসায়ী ওয়াতালির কাছে টাকা আসত।

 

Comments
Loading...