সাবরীমালার মতোই সমাজের প্রতি পদে বাধার মুখে মহিলারা, কেরলের ১৮ নারীকে নিয়ে অভিনব প্রচার শর্মিলা নায়ারের

২০১৮ সালের ২৮ শে সেপ্টেম্বর। ঐতিহাসিক রায়ে সাবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশাধিকার দেয় সুপ্রিম কোর্ট। শীর্ষ আদালতের রায়ে ঋতুমতী মহিলাদের আর আয়াপ্পা দেবের দর্শনে বাধা না থাকলেও, বিজেপি ও কট্টর হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলো সুপ্রিম কোর্টের রায়ের প্রবল বিরোধিতা করে। মন্দিরের ঐতিহ্য ও পবিত্রতার প্রশ্ন তুলে মহিলাদের বাধা দেওয়ার চেষ্টা হয়। শেষ পর্যন্ত সমস্ত বাধা উপেক্ষা করে বিন্দু ও কণকদুর্গা নামে ২ মহিলা প্রথম আয়াপ্পা দর্শন করেন। কিন্তু এইভাবে সামাজিক বা পরিবারিকভাবে মহিলারা যে দৈনন্দিন বাধার মুখে পড়েন তা নিয়ে সাবরীমালা পরবর্তী আন্দোলন শুরু করলেন কোচির বাসিন্দা শর্মিলা নায়ার। তাঁর অনলাইন ক্যাম্পেইনের নাম ‘এইট্টিন শেডস অফ ব্ল্যাক’। যেখানে বিভিন্ন ক্ষেত্রের ১৮ জন মহিলা জানাবেন, শুধুমাত্র নারী হওয়ার জন্যই কীভাবে তাঁরা সামাজিক,পারিবারিক বাধা ও বঞ্চনার শিকার।
সাবরীমালা মন্দিরের শেষ ১৮ টি সিঁড়ি ডিঙিয়ে আয়াপ্পা দেবের দর্শন মেলে। সাবরীমালা মন্দিরের পুন্যার্থীরা মূলত কালো রঙের পোষাক পরে মন্দিরের গর্ভগৃহে প্রবেশ করেন। সেদিক থেকে শর্মিলা নায়ারের মস্তিষ্কপ্রসূত অনলাইন ক্যাম্পেনের নামকরণ ও  পোশাক পরিহিত মহিলাদের শর্ট ভিডিও ও ছবি গভীর সংজ্ঞাবহ। শর্মিলা নায়ারের কথায়, কালো রঙের পোশাক এবং এবং ক্যাম্পেনের নামকরণ কোনও কাকতালীয় ঘটনা নয়। সম্প্রতি সাবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশাধিকারের বিরোধিতায় যেভাবে কেঁপে উঠেছিল কেরল, এই মহিলা বিদ্বেষ যে আসলে সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে ছড়িয়ে আছে, তাই তুলে ধরতে চেয়েছেন এই অনলাইন ক্যাম্পেনে। সেইসঙ্গে সাবরীমালা নিয়ে কয়েকজন মহিলার সমানাধিকারের লড়াই তাঁকে এই কাজে উদ্বুদ্ধ করেছে বলে মন্তব্য করেন শর্মিলা। এই একুশ শতকেও গৃহবধূ থেকে বড়ো সংস্থার কর্মী, লেখিকা থেকে ফ্যাশান ডিজাইনার, ব্যক্তিগত জীবনে যাই অর্জন করুন না কেন, তাঁকে বিভিন্ন সামাজিক বা পারিবারিক বাধার মুখোমুখি হতে হয় শুধুমাত্র তিনি মহিলা বলে। পিতৃতন্ত্রের রক্তচক্ষু কাটিয়ে মহিলাদের এগিয়ে যাওয়ার বার্তা দেওয়ার প্রয়াস করা হয়েছে ‘এইট্টিন শেডস অফ ব্ল্যাক’ ক্যাম্পেইনে।
ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন ক্ষেত্রের ৯ জন মহিলার ছবি ও ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে। প্রত্যেকটি ভিডিও এবং ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোড়ন ফেলে দিয়েছে। শর্মিলা নায়ারের ‘এইট্টিন শেডস অফ ব্ল্যাক’ ক্যাম্পেনের মহিলাদের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা আলাদা হলেও, প্রত্যেকেই অন্তত একটি তিক্ত অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে গেছেন। সেইসব বিধিনিষেধ কাটিয়ে মহিলাদের সত্যিকারের অর্ধেক আকাশ হওয়ার অনুপ্রেরণা যোগাচ্ছে এইট্টিন শেডস অফ ব্ল্যাক।

Comments
Loading...