কীভাবে বিপুল সম্পত্তির মালিক দাউদ ঘনিষ্ঠ ইকবাল মির্চি? ইডির তদন্ত মহারাষ্ট্রের নির্বাচনী প্রচারে নয়া ইস্যু

আন্ডার ওয়ার্ল্ড ডন দাউদ ইব্রাহিমের এক সময়ের ঘনিষ্ঠ সহযোগী বলে পরিচিত প্রয়াত ইকবাল মির্চির বিরুদ্ধে ওঠা অর্থ তছরূপের তদন্তে নেমে গত সপ্তাহে দু’জনকে গ্রেফতার করেছে ইডি।
অভিযোগ, মুম্বইয়ের ওরলি এলাকায় প্রায় ২৫০ কোটির সম্পত্তি অবৈধভাবে কিনেছিলেন মির্চি।
ইডির তদন্তে উঠে এসেছে, এই সম্পত্তি কেনাবেচায় ঘুর পথে বহু সন্দেহজনক এবং জটিল লেনদেন হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে হঠাৎই তৎপর হয়ে উঠেছে ইডি। আর মহারাষ্ট্র নির্বাচনের আগে গোটা বিষয়ে লেগেছে রাজনীতির রংও।
এই সম্পত্তি কেনাবেচায় যে মিলেনিয়াম ডেভেলপার্সের নাম উঠে আসছে তার মালিক এনসিপি নেতা তথা দেশের প্রাক্তন অসামরিক বিমান পরিবহণমন্ত্রী প্রফুল্ল প্যাটেল। যদিও প্যাটেল ইকবাল মির্চির সঙ্গে কোনওরকম আর্থিক লেনদের কথা অস্বীকার করেছেন। অন্যদিকে এই ঘটনার তদন্তে মির্চির স্ত্রী ও দুই ছেলেকে ইতিমধ্যেই সমন পাঠিয়েছে ইডি।
কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাটির আরও দাবি, স্মাগলিং, অস্ত্র কারবার, কালো টাকা পাচার করে বিপুল সম্পত্তির মালিক হয়েছিলেন ইকবাল মির্চি।
চলতি বছরের ৩০ অগাস্ট মহারাষ্ট্র পুলিশ ইডিকে জানিয়েছে খুন, মাদক, অস্ত্র পাচার মামলায় ৮ টি অভিযোগ রয়েছে ইকবালের বিরুদ্ধে। মহারাষ্ট্র ছাড়াও দেশের নানা প্রান্তে বিপুল সম্পত্তি রয়েছে মির্চির।
সামনেই মহারাষ্ট্রে বিধানসভা নির্বাচন। সেই নির্বাচনের আগে দাউদ-ইকবাল মির্চি প্রসঙ্গ স্বাভাবিকভাবেই উঠে এসেছে প্রচারে। প্রফুল প্যাটেলের বিরুদ্ধেও শুরু হয়েছে তদন্ত। সব মিলে অস্বস্তিতে এনসিপি শীর্ষ নেতা।

Comments
Loading...