‘আত্মহত্যা করছি’, অবসাদগ্রস্ত যুবকের পোস্ট দেখে সতর্ক করল ফেসবুক, পুলিশের চেষ্টায় বাঁচল প্রাণ

ফের ফেসবুকে ভিডিও আপলোড করে আত্মহত্যার চেষ্টা এক যুবকের। তবে ফেসবুকেরই সাহায্যে এই আত্মহত্যার চেষ্টা রুখে দিল রাজ্যের সাইবার পুলিশ। ঘটনাটি নদিয়ার।

রবিবার রাত তখন প্রায় দেড়টা। ফেসবুকের তরফে একটি ই-মেল পায় রাজ্য সাইবার পুলিশ। মেলে জানানো হয়, এক ফেসবুক ইউজার আত্মহত্যার চেষ্টা করছেন। ওই ইউজার ফেসবুকে তাঁর টাইমলাইনে একটি ভিডিও আপলোড করে জানান, তিনি ধারালো ব্লেড দিয়ে নিজেকে শেষ করে দিতে চলেছেন। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ থেকে এই খবর পেয়ে আত্মহত্যা রুখতে শুরু হয় তদন্ত। সাইবার পুলিশ জানতে পারে, ফেসবুকে নিজের প্রোফাইল তৈরি করার সময় কয়েকটি ফোন নম্বর তৈরি করেছিলেন ওই ইউজার। সেই ফোন নম্বরগুলি যাচাই করে দেখা যায়, একটি নম্বর নদিয়া জেলার। এরপর নম্বরের লোকেশন খুঁজে বের করে পুলিশ। দেখা যায়, নম্বরটি আসলে ওই ফেসবুক ইউজারের বাবার ফোন।

আর দেরি করেনি পুলিশ। সঙ্গে সঙ্গে সেই নম্বরে ফোন। ছেলের আত্মহত্যার চেষ্টা চালানোর কথা তাঁর বাবার কাছে পৌঁছে দিতে চলে যায় পুলিশের ফোন। ওই ফেসবুক ব্যবহারীর বাবাকে সংক্ষেপে সব ঘটনা খুলে বলে পুলিশ। তখন তিনি ছিলেন ছেলের ঠিক পাশের ঘরেই। সঙ্গে সঙ্গে পাশের ঘরে গিয়ে ছেলেকে উদ্ধার করেন তিনি। অল্পের জন্য অপ্রীতিকর ঘটনা থেকে মুক্তি মেলে।

পরে ওই ফেসবুক ইউজারের বাবা পুলিশকে জানান, তাঁর ছেলে গত ২-৩ বছর ধরে ডিপ্রেশনে ভুগছেন। এর আগেও ৩-৪ বার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। এ দিনের গোটা ঘটনা জানানো হয় নদিয়া পুলিশকে। ছেলেটির জন্য একটি মেডিক্যাল টিম ঘটনাস্থলে নিয়ে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয় পুলিশের কাছে। পরে ওই ব্যক্তিকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। ছেলের প্রাণরক্ষার জন্য পুলিশ ও ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ফেসবুক ইউজারের বাবা।

Comments
Loading...