ফেয়ার হল গ্লো! বর্ণবিদ্বেষ বিরোধী আন্দোলনের জের, ‘ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি’ নাম বদলে হল ‘গ্লো অ্যান্ড লাভলি

শেষমেশ অতি পরিচিত ‘ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি’ ক্রিম নাম বদলে হয়ে গেল ‘গ্লো অ্যান্ড লাভলি’। বৃহস্পতিবার হিন্দুস্তান ইউনিলিভার সংস্থার তরফে জানানো হয় এই নাম পরিবর্তনের কথা। একইভাবে ছেলেদের ক্রিম ‘ফেয়ার অ্যান্ড হ্যান্ডসাম’-এর নামও থেকেও ‘ফেয়ার’ বা ফরসা শব্দ সরিয়ে নতুন নাম হল ‘গ্লো অ্যান্ড হ্যান্ডসাম’। এদিকে ফরাসি প্রসাধনী সংস্থা লরিয়্যালও তাদের ‘হোয়াইটনিং’ লেখা ক্রিমের নাম পরিবর্তন করে ‘গ্লো’ শব্দটিই বেছে নিয়েছে।
মার্কিন মুলুকে কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েডের হত্যা, বর্ণবিদ্বেষ নিয়ে বিশ্বজোড়া আলোচনা ও আন্দোলনের মধ্যে গত সপ্তাহে বড় পরিবর্তনের কথা ঘোষণা করে হিন্দুস্তান ইউনিলিভার সংস্থা। জানানো হয়, তাদের জনপ্রিয় প্রসাধনী পণ্যগুলি থেকে ‘ফরসা’-র মতো শব্দ বাদ দেওয়া হবে। সৌন্দর্যের সংজ্ঞা গায়ের রঙের উপর নির্ভর করে না। তাই ‘ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি’ থেকে ‘ফেয়ার’ শব্দ বাদ দেওয়া হবে বলে জানায় তারা। এর আগে আর এক বহুজাতিক সংস্থা জনসন অ্যান্ড জনসনের তরফেও জানানো হয়, ভারত-সহ এশিয়ার দেশগুলিতে আর ফরসা হওয়ার ক্রিম বিক্রি করবে বা তারা।
হিন্দুস্তান ইউনিলিভারের তরফে জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কোম্পানির স্কিনকেয়ার পোর্টফোলিও বা ত্বকের যত্নে ব্যবহৃত প্রসাধন পণ্য সব রঙের স্কিন টোনের জন্য। সৌন্দর্যের প্রতিটি বৈচিত্রই অনন্য। এরই ধারাবাহিকতায় কোম্পানির ফ্ল্যাগশিপ ব্র্যান্ড ফেয়ার অ্যান্ড লাভলির নাম পরিবর্তন করতে যাচ্ছে তারা। অতঃপর নাম বদলানোর সঙ্গে সঙ্গে বিজ্ঞাপনের স্টাইলেও বদল আনা হবে।
ভারতের বাজারে ফেয়ারনেস ক্রিমের চাহিদা বিশাল। এই প্রসাধনী বেচেই প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকার ব্যবসা হয় এ দেশে। যার মধ্যে ফেয়ার অ্যান্ড লাভলির হাতেই আছে ৭০ শতাংশ শেয়ার। চিন, ভারত-সহ এশিয়ার দেশগুলির প্রায় ৪০ শতাংশ মহিলা ‘ফেয়ারনেস ক্রিম’ ব্যবহার করেন। ফরসা রঙের প্রতি এই দুর্বলতা, মানুষকে প্রলুব্ধ করে এই প্রসাধনীগুলির বিজ্ঞাপনী প্রচার আসলে বর্ণবিদ্বেষকেই তোয়াজ করে, এমনই অভিযোগ করছেন বর্ণবিদ্বেষ বিরোধী আন্দোলনকারীরা। কিছুদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয়েছে ফেয়ারনেস ক্রিম তৈরি করা সংস্থাগুলির বিরুদ্ধে জোর প্রচার। এর মধ্যে দিন কয়েক আগে জনসন অ্যান্ড জনসন দুটি ফেয়ারনেস ক্রিম ভারতের বাজারে বিক্রি বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয়। তার এক সপ্তাহের মধ্যেই ‘ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি’ ক্রিম থেকে ‘ফেয়ার’ শব্দ ছেঁটে ফেলার সিদ্ধান্ত জানায় হিন্দুস্তান ইউনিলিভার।

Comments
Loading...