২৮ দিনে কৃষক আন্দোলন, মমতার সঙ্গে কথা নেতৃত্বের, আসছেন মহারাষ্ট্রের কৃষকরা

কিষাণ দিবসের দিন বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর বার্তা নিয়ে সিঙ্ঘু বর্ডারে পৌঁছে গেলেন তৃণমূল সাংসদরা। আন্দোলনরত কৃষকদের সঙ্গে ফোনে কথা মমতা ব্যানার্জির। বিজেপিকে ধাক্কা দিতে পারবেন আপনি, মমতাকে বললেন আন্দোলনরত কৃষকরা। 

বুধবার দুপুরে সিঙ্ঘু সীমানায় পৌঁছন সাংসদ ডেরেক, শতাব্দী, প্রসূন, প্রতিমা মণ্ডল এবং নাদিমুল হক। আন্দোলনরত কৃষকদের সঙ্গে কথা বলেন তাঁরা। জানান দলনেত্রী সম্পূর্ণভাবে কৃষকদের পাশে আছেন। সাংসদ শতাব্দী রায়ের ফোন থেকে মমতার সঙ্গে সরাসরি কথা বলেন কৃষক নেতারা। পাশে থাকার জন্য তাঁরা মমতাকে ধন্যবাদ জানান। বলেন, আপনি আমাদের দিদি। আমরা জানি আপনি বিজেপিকে জোর ধাক্কা দিয়েছেন, আবারও দেবেন। বর্ষীয়ান কৃষক নেতা মমতা ব্যানার্জিকে বলেন, দিদি মোদী সরকার শুধু দুজনকে পাত্তা দেয়, আম্বানী আর আদানি। আমাদের মতো বাকিদের জীবন অতিষ্ঠ করে তুলেছে সরকার-শিল্পপতিদের এই অনৈতিক জোট। আপনারা এখানে আসুন। আমাদের সঙ্গে সামান্য খাওয়াদাওয়া করুন। আমরা সবাই মিলে মোদী সরকারকে ঝুঁকতে বাধ্য করব। মমতা কৃষক নেতৃত্বকে জানান এছাড়া আর পথ নেই।

এদিকে দিল্লি সীমানার কৃষক আন্দোলনের রেশ ছড়িয়ে পড়ছে সাড়া দেশে। মহারাষ্ট্র থেকে শতাধিক বাস-ট্রাক ভাড়া করে দিল্লি আসছেন কৃষকরা। নেতৃত্বে কৃষক সভার সভাপতি ডক্টর অশোক ধাওয়ালে। রাস্তায় কোথাও আটকে না দিলে বৃহস্পতিবার সকালেই তাঁরা পৌঁছে যাবেন দিল্লি-হরিয়ানা সীমানায়। 

এদিকে কৃষক আন্দোলন ২৮ দিনে পড়ল। কিন্তু এখনও অধরা সমাধান সূত্র। এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আগামী শুক্রবার ৬ রাজ্যের কৃষকদের সঙ্গে কথা বলবেন। সেই অনুষ্ঠানেই PMKSN প্রকল্পের ৯ কোটি কৃষকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ১৮ হাজার কোটি টাকা জমা করবেন মোদী।

Comments
Loading...