নতুন বছরে নতুন ফেলুদা। কুড়ি সালে ফেলুদা ফিরছে (Feluda Pherot) সৃজিতের হাত ধরে। তবে বড় পর্দায় নয়, এবার ফেলুদার মজগাস্ত্রের পরীক্ষা ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে। পরিচালক সৃজিত মুখার্জি ফেলুদা ফেরত নিয়ে আসছেন ওয়েব সিরিজের মোড়কে। ডিজিটাল পর্দায় আসতে চলেছে ছিন্নমস্তার অভিশাপ এবং যত কাণ্ড কাঠমান্ডুতে। স্বভাবতই ফেলুদা ফেরতে থাকছে সৃজিতের সমসাময়িক ভাবনার প্রতিফলন এবং নতুন ফেলুদা, তোপসে, জটায়ু। তবে সবার নজর কেড়েছে মগনলাল মেঘরাজের চরিত্রে খরাজ মুখার্জির চরিত্রায়ন।
ভারতীয় সিনেমা এবং তর্কাতিতভাবে নাট্যমঞ্চের সর্বকালের অন্যতম শ্রেষ্ঠ অভিনেতা-পরিচালক-নাট্যকার উৎপল দত্তের ছেড়ে যাওয়া জুতোয় পা গলানো খরাজকে মানিয়েছে খাসা। কিন্তু মগনলালের চরিত্রের প্রতি সুবিচার করতে পারবেন কি খরাজ? ফেলুদাপ্রেমীদের কাছে এটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন। তবে প্রাথমিকভাবে চরিত্রায়নের দিক থেকে একশোয় একশো পেয়েছেন শক্তিশালী অভিনেতা হিসেবে ইতিমধ্যেই পরিচিতি পেয়ে যাওয়া খরাজ। নজর কাড়ছেন ফেলুদার চরিত্রে টোটা, তোপসের চরিত্রে কল্পন এবং জটায়ুর চরিত্রে অনির্বাণ চক্রবর্তীরা। ফলে নবরূপে, নব আঙ্গিকে ফেলুদাকে (Feluda Pherot) দেখতে আর তর সইছে না তামাম মগজাস্ত্রপ্রেমীর।
এতো গেল চরিত্রের কথা। এবার আসুন বদলে যাওয়া দৃশ্যপটে। ছিন্নমস্তার অভিশাপ করা হবে সাতের দশকের পটভূমিকায়। আর যত কাণ্ড কাঠমান্ডুতে হবে আজকের দিনের পটভূমিতে। এর একটা বড় কারণ, নেপালে ২০১৫ সালের ভূমিকম্প। যে ভূমিকম্পের পর কাঠমান্ডুর ল্যান্ডস্কেপে এসেছে একটা বড়সড় বদল। গল্পের সময়কার দরবার স্কোয়ার আর নেই। তাই সেকথা মাথায় রেখে প্রয়োজনীয় অদলবদল করেছেন সৃজিত মুখার্জি।
কেমন লাগছে আজকের ফেলুদা, তোপসে, জটায়ু, মগনলাল মেঘরাজদের।

দ্রুত শ্যুটিং শেষ করে, পোস্ট প্রোডাকশন সামলে বছরের মাঝামাঝি ফেলুদাকে ভক্তদের মোবাইল স্ক্রিনে ছাড়াই এখন পাখির চোখ পরিচালক সহ গোটা টিমের। দাঁতে দাঁত চিপে তারই অপেক্ষায় সত্যজিতের অমর সৃষ্টি ফেলুদার অগুন্তি ভক্তকূল।

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা শুরু করেছি সাবস্ক্রিপশন অফার। নিয়মিত আমাদের সমস্ত খবর এসএমএস এবং ই-মেইল এর মাধ্যমে পাওয়ার জন্য দয়া করে সাবস্ক্রাইব করুন। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us

You may also like

11 New Corona Positive in Bengal