এলআইসি, আইডিবিআই, ভারত পেট্রোলিয়ামের শেয়ার বিক্রি করবে কেন্দ্র, ঘোষণা অর্থমন্ত্রীর, তীব্র প্রতিক্রিয়া মমতার

এবার এলআইসি, ভারত পেট্রোলিয়াম ও আইডিবিআই ব্যাঙ্কের অংশিদারিত্ব বিক্রির কথা ঘোষণা করল কেন্দ্র। রেল থেকে এয়ার ইন্ডিয়া, রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থার বেসরকারিকরণের সিদ্ধান্ত নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব বিরোধীরা। এর মধ্যেই লাইফ ইনসিওরেন্স কর্পোরেশন ও আইডিবিআই ব্যাঙ্কের শেয়ার বিক্রির কথা জানিয়ে দিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা করেছেন। তিনি ট্যুইটারে লেখেন, আমি হতবাক ও বিস্মিত যেভাবে একের পর এক প্রাচীন কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলিকে বেসরকারিকরণ করা হচ্ছে, তাতে আমি হতবাক ও বিস্মিত। মানুষের নিরাপত্তাজনিত কোনও কিছুই নেই। এটা কি একটা যুগের পতন? এই প্রশ্ন তুলে এলআইসি, ভারতীয় রেলওয়ে, এয়ার ইন্ডিয়ার বেসরকারিকরণের তীব্র বিরোধিতা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

বিরোধিতা করেছে কংগ্রেস, সিপিএম-সহ অন্য বিরোধী দলগুলিও। এলআইসি-র কর্মী ও অফিসারদের বিভিন্ন সংগঠন জানিয়েছে, তারা খুব তাড়াতাড়ি এর বিরুদ্ধে পথে নামবে। বিরোধীদের অভিযোগ, এইভাবেই কেন্দ্র এলআইসির বিলগ্নিকরণের পথ প্রশস্ত করছে। শনিবার বাজেট ভাষণে অর্থমন্ত্রী জানান, ইনিশিয়াল পাবলিক অফারিং-এর মাধ্যমে এলআইসি-র অংশিদারিত্ব বিক্রির উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্র। যদিও এ নিয়ে আর বিশেষ ব্যাখ্যায় যাননি তিনি।
১৯৫৬ সালে স্থাপিত হয় এলআইসি। শতাব্দী প্রাচীন এই বিমা সংস্থার একশো শতাংশ শেয়ারই এখন কেন্দ্রের হাতে রয়েছে। এরই ‘আংশিক’ অংশিদারিত্ব বিক্রির পরিকল্পনার কথা বাজেট পেশের সময় জানিয়ে দেন অর্থমন্ত্রী। যদিও ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসেই এলআইসি-র চেয়ারম্যান এম আর কুমার জানিয়েছিলেন, প্রাচীন বিমান সংস্থার শেয়র বিক্রির কোনও সম্ভাবনা নেই।
২০০৯ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত এই দশ বছরের মধ্যে এলআইসি ২৯১ শতাংশ বিনিয়োগ থেকে আয়ের সাক্ষী থেকেছে। গত সপ্তাহেই এলআইসি-র বার্ষিক রিপোর্টে প্রকাশ হয়েছে, ২০১৯ আর্থিক বছরের শেষে বিমা সংস্থার বিনিয়োগ সংক্রান্ত আয় হয়েছে ২,২১,৫৭৩.৭২ কোটি টাকা। এলআইসিতে লক্ষ লক্ষ মানুষের আমানত রয়েছে। এর সঙ্গে তাদের স্বার্থ জড়িত।

Comments
Loading...