শ্রমিক, তীর্থযাত্রী, পড়ুয়া সহ সমস্ত মানুষকে ঘরে ফেরানোর উদ্যোগ রাজ্যের, ১০ টি ট্রেনকে ছাড়পত্র, জানালেন স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন ব্যানার্জি

ভিন রাজ্যে আটকে থাকা শ্রমিক, তীর্থযাত্রী সহ সমস্ত মানুষকে বাংলায় ফেরাতে উদ্যোগ নিল মমতা ব্যানার্জির সরকার।
আগামী কয়েক দিনের মধ্যে বিভিন্ন রাজ্য থেকে বাংলায় আসার জন্য ১০ টি ট্রেনকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে বলে শনিবার সাংবাদিক বৈঠকে জানালেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন ব্যানার্জি।
এদিন সকালেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পাঠানো চিঠি নিয়ে নতুন সংঘাত শুরু হয়েছে কেন্দ্র ও রাজ্যের মধ্যে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে পাঠানো চিঠিতে অমিত শাহ অভিযোগ করেন, পরিযায়ী শ্রমিকদের রাজ্যে ফেরাতে অসহযোগিতা করছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এর উত্তর দিতে শনিবার সাংবাদিক বৈঠকের প্রথমেই পরিযায়ী শ্রমিকদের ট্রেনে করে ঘরে ফেরানোর ব্যাপারে বিবৃতি দেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব। তিনি জানান, অন্যান্য রাজ্যের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে কেরল, পঞ্জাব, কর্ণাটক, তামিলনাড়ু, বেঙ্গালুরু, হায়দরাবাদ, তেলেঙ্গানা ইত্যাদি রাজ্য থেকে ১০ টি ট্রেনে এ রাজ্যের পরিযায়ী শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনা হচ্ছে। রবিবারই তেলেঙ্গানা থেকে একটি ট্রেন মুর্শিদাবাদ জেলায় পৌঁছচ্ছে বলে জানান আলাপন ব্যানার্জি। এছাড়া, মথুরা, বৃন্দাবন ইত্যাদি তীর্থস্থানে আটকে পড়া এ রাজ্যের বাসিন্দাদের ফেরানোর বন্দোবস্ত হচ্ছে। পাশাপাশি, যাঁরা পায়ে হেঁটে প্রতিবেশী রাজ্য থেকে এ রাজ্যের সীমানার দিকে চলে আসছেন, মেডিক্যাল প্রোটোকল মেনে বাসে করে তাঁদের নিজস্ব জেলায় ফিরিয়ে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে রাজ্য সরকার। স্বরাষ্ট্র সচিব জানান, বিহার, ওড়িশা, ঝাড়খণ্ড, সিকিম ও অসম সীমান্তে এসে পৌঁছনো রাজ্যের বাসিন্দাদের এভাবেই বাসে করে পৌঁছে দেওয়া হবে তাঁদের নিজস্ব জেলায়। এজন্য সরকারের প্রায় এক হাজার বাস কাজে লাগানো হচ্ছে। বেসরকারি বাসেরও ব্যবস্থা করা হচ্ছে। একইরকম ভাবে এ রাজ্যে আটকে থাকা ভিন রাজ্যের শ্রমিকদের রাজ্যের সীমানায় পৌঁছে দেওয়া হবে।
নিজ উদ্যোগে যাঁরা ভিন রাজ্য বা জেলা থেকে ঘরে ফিরতে চান, তাঁদের জন্য অটোমেটেড ই-পাস সিস্টেম চালু করেছে রাজ্য সরকার। এখনও পর্যন্ত ছোট গাড়ি রাজ্যে আসার পাশ নিয়েছেন ১৯ হাজার মানুষ এবং বাসে করে ফিরে আসার অনুমোদন পেয়েছেন ১,১৭২ জন বলে জানান স্বরাষ্ট্র সচিব। একইভাবে ভিন রাজ্যের ৫৪৭৫ জন ছোট গাড়ি করে যাওয়ার এবং বাসে যাওয়ার জন্য ৭০০ জন অনুমতি পেয়েছেন।
বিদেশ প্রত্যাগতদের বিমানপথে ফেরানোর কাজও যথাযথভাবে করা হয়েছে। বিদেশ থেকে কেউ ফিরলে তাঁদের জন্য কোয়ারেন্টিনে থাকার বন্দোবস্ত করে ফেলেছে রাজ্য সরকার, জানান আলাপন ব্যানার্জি।
তিনি জানিয়েছেন, শনিবার পর্যন্ত রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৬৭৮ জন, নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ১০৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে করোনায়। রাজ্যে শনিবার পর্যন্ত করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৯৯ জন, এছাড়া কো-মর্বিডিটিতে মারা গিয়েছেন ৭২ জন।
মোট মুক্ত হয়েছেন ৩৭২ জন, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা পরীক্ষা হয়েছে ৩ হাজার ১৫ জনের।

Comments
Loading...