কেশপুরে সিপিএমের মিছিলে মানুষের ঢল, হামলার অভিযোগ, পাল্টা বিজেপি পার্টি অফিস ঘেরাও

জঙ্গলমহলে ফের জাগছে সিপিএম?

১ দশক পর কেশপুরে মিছিল করল সিপিএম। আর মিছিল শুরু হতেই ইট বৃষ্টি। মুখ ঢাকা দুষ্কৃতিদের হামলায় মুহূর্তের মধ্যে রক্তারক্তি। কারও মাথা ফেটেছে আবার কারও কপাল ফেটে ঝরছে রক্ত। কিন্তু মিছিল আটকানো যায়নি। আহতদের হাসপাতালে পাঠিয়ে লাল নিশান কাঁধে আবার পায়ে পায়ে এগোলেন মানুষ। ইনকিলাবের আকাশ ফাটানো স্লোগানকে সঙ্গী করে ১ দশক পর ফের জঙ্গলমহলের পথে সিপিএম।

সুশান্ত ঘোষ ঘরে ফেরার পর থেকেই যেন জঙ্গলমহলে গা ঝারা দিয়ে উঠেছে সিপিএম। সুশান্ত ঘোষ নিজে থাকছেন কর্মসূচির একেবারে সামনে। 

দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর ২৪ ঘণ্টা আগে খুলেছে বেনাচাপড়ার সিপিএম পার্টি অফিস। গড়বেতা থেকে চন্দ্রকোনা রোড পর্যন্ত বামেদের মিছিলেও প্রচুর মানুষ যোগ দিয়েছিলেন। এবার কেশপুরে দুষ্কৃতি হামলা উপেক্ষা করে মিছিল করল লাল পার্টি। এখানেই শেষ নয়, হামলাকারীদের তাড়া করলেন মহিলারা। হামলাকারীরা গিয়ে ঢোকেন বিজেপি পার্টি অফিসে। ৪ ঘণ্টা সেই অফিস ঘেরাও করে রাখেন প্রায় শ’চারেক মহিলা। পুলিশ এলে তাঁরাও ঘেরাও হয়ে যান। শেষ পর্যন্ত দোষীদের গ্রেফতারের প্রতিশ্রুতি দিলে মহিলারা সরে আসেন। পুলিশ কয়েকজনকে আটক করেছে। 

সিপিএমের অভিযোগ, বিজেপির দুষ্কৃতি বাহিনী হামলা করেছে। নেতৃত্বে মণ্ডল সভাপতি প্রবীণ হালদার। 

মহিলারা যখন বিজেপির পার্টি অফিস ঘেরাও করে আছেন তখন মিছিল এগিয়ে চলে। পরবর্তী গন্তব্য গাঁটরা। সেখানে সিপিএম পার্টি অফিস দখল করার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে। কিন্তু দলবদলের হাওয়ায় সেই ব্যক্তিরা এখন বিজেপিতে। গেরুয়া পতাকা খুলে ফের সেখানে লাগিয়ে দেওয়া হয় লাল নিশান। দীর্ঘদিন পর ফের লাল পতাকা ওড়ে গাঁটরায় সিপিএমের পার্টি অফিসে। 

সবমিলিয়ে সুশান্ত ঘোষকে সামনে রেখে জঙ্গলমহলে ফের জাগছে সিপিএম। কিন্তু মিছিলের জনসমাগম কী ভোটের বাক্সে প্রতিফলিত হবে? নাকি সভা সমিতিতে ভিড় হলেও বামেদের রক্তক্ষরণ এখনও অব্যাহত? সেটাই এখন প্রশ্ন। 

Comments
Loading...