ইন্দ্রনীল সেনের উদ্যোগে চন্দননগরে জগদ্ধাত্রী পুজো কমিটির সদস্যদের ভ্যাকসিনেশন

কয়েকমাস পরেই চন্দননগরে বিখ্যাত জগদ্ধাত্রী পুজো। এর আগেই আছড়ে পড়তে পারে করোনার তৃতীয় ঢেউ। তাই আগে থেকে ব্যবস্থা নিচ্ছে হুগলি জেলা প্রশাসন। এবার পুজো উদ্যোক্তাদের কোভিড ভ্যাকসিন দেওয়ার ব্যবস্থা করল পৌরনিগম ও হুগলি জেলা প্রশাসন।

বুধবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির উদ্যোগে এবং চন্দননগরের মাননীয় বিধায়ক তথা তথ্য ও সংস্কৃতি, পর্যটন দপ্তরের মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেনের তত্ত্বাবধানে পুজো কমিটিগুলির সদস্যদের ভ্যাকসিন দেওয়া হয়। চন্দননগর রবীন্দ্রভবনে এই ভ্যাকসিন দেওয়া হয়। আগামী কয়েকদিন ভ্যাকসিনেশনের কাজ চলবে বলে জানা গেছে।

মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন নিজে উপস্থিত থেকে ভ্যাকসিনেশনের কাজ দেখাশোনা করেন। পুজো উদ্যোক্তাদের সঙ্গে কথা বলেন। করোনা বিধি মেনেই এইবছর চন্দননগরের ঐতিহ্য জগদ্ধাত্রী পুজো করতে পরামর্শ দেন পুজো কমিটির সদস্যদের। ইন্দ্রনীল সেন জানান, চন্দননগরের ঐতিহ্য ও বিশ্ববন্দিত জগদ্ধাত্রী পুজোকে করোনার গ্রাস থেকে রক্ষা করতে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে এবং পুজোর গৌরব অক্ষুণ্ণ রাখতে পুজা কমিটিগুলোকে ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। ভ্যাকসিন নেওয়ার পর পুজো কমিটিগুলি ইন্দ্রনীল সেনের ভূয়সী প্রসংশা করে। অতীতেও বিধায়ককে পাশে পেয়েছি, আর এখনও পাচ্ছি বলে জানান তাঁরা।

Comments
Loading...