চন্দন দস্যু বীরাপ্পন এনকাউন্টারের নেতৃত্ব দেওয়া প্রাক্তন আইপিএস বিজয় কুমার এবার কাশ্মীরের দায়িত্বে।

চন্দন কাঠ দস্যু বীরাপ্পন এনকাউন্টারের দায়িত্বে থাকা অবসরপ্রাপ্ত আইপিএস অফিসার কে বিজয় কুমারকে উপদেষ্টা পদে নিয়োগ করলেন জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যপাল এন এন ভোরা। জঙ্গি দমনে এই অফিসারের অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর জন্য তাঁকে রাজ্যপালের উপদেষ্টা নিয়োগ করা হয়েছে। ১৯৭৫ ব্যাচের এই আইপিএস অফিসারের কাশ্মীরে কাজের অভিজ্ঞতা নতুন নয়। ১৯৯৮ সালে বিএসএফের আই জি (অপারেশন) হিসাবে তিনি জম্মু-কাশ্মীরে কাজ করেছেন। পিডিপি-বিজেপি জোট সরকার পতনের পর কাশ্মীরের নয়া পরিস্থিতি সামলানোর জন্য বিজয় কুমারের অভিজ্ঞতা বিশেষ কাজে লাগবে বলেই মনে করছেন রাজ্যপাল এন এন ভোরা।
দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী তামিলনাড়ুর পেরামপুদুরে মানববোমায় নিহত হওয়ার ঠিক এক বছর আগে তাঁর নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন বিজয় কুমার। তারপর তামিলনাড়ুর প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার নিরাপত্তার দায়িত্ব সামলেছেন এসপিজি অফিসার হিসেবে। তবে  বিজয় কুমারকে দেশের প্রশাসনিক শীর্ষ কর্তারা আজও বিশেষ গুরুত্ব দেন চন্দন দস্যু বীরাপ্পনের বিরুদ্ধে অপারেশনের জন্য। বীরাপ্পনকে ধরার জন্য গঠন করা হয়েছিল স্পেশাল টাস্ক ফোর্স। তার দায়িত্বে ছিলেন বিজয় কুমার। চন্দন কাঠের পাশাপাশি হাতির দাঁতের আন্তর্জাতিক চোরাকারবারের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন বীরাপ্পন। বীরাপ্পন এবং তাঁর দলবলের বিরুদ্ধে অপারেশনের ছক সাজিয়েছিলেন এই প্রাক্তন আইপিএস অফিসার। এ হেন দুঁদে আইপিএস অফিসার পাক হানাদারদের মোকাবিলা সাফল্যের সঙ্গে করতে পারবেন বলেই মনে করছেন উপত্যকার প্রশাসনিক আধিকারিকরা।

চন্দন কাঠ দস্যু বীরাপ্পন

এদিকে বৃহষ্পতিবার জম্মু-কাশ্মীর ইস্যুতে বিজেপিকে কার্যত তুলোধনা করেছে শিবসেনা। এদিন শিবসেনার পক্ষ থেকে আনুষ্ঠনিক বিবৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, ক্ষমতা দখলের জন্য বিজেপি কাশ্মীরে যে ধরনের রাজনীতি করছে তাতে ইতিহাস তাদের ক্ষমা করবে না। অন্যদিকে, এইদিন জম্মু-কাশ্মীরে বিজেপির রাজ্য সভাপতি রবীন্দর রায়না দাবি করেছেন, তাঁকে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। সংবাদসংস্থাকে তিনি জানিয়েছেন, রাওয়ালপিন্ডি, লাহোর, করাচি থেকে হুমকি দিয়ে ফোন আসছে তাঁর কাছে।

Comments
Loading...