১৯৭৫ ব্যাচের আইএএস জহর সরকার সাম্প্রদায়িক হিংসা মোকাবিলা করেছেন, কেমন ছিল সফর

রাজ্যসভায় তৃণমূলের প্রার্থী হচ্ছেন প্রসার ভারতীর প্রাক্তন সিইও জহর সরকার। শনিবার এই সিদ্ধান্ত টুইট করে জানিয়েছে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস। টুইটে বলা হয়েছে, জহর সরকার ৪২ বছর জনসেবায় নিযুক্ত ছিলেন। তাঁর জনসেবামূলক কাজ দেশকে উন্নতির পথে নিয়ে যাবে। আলাপন ব্যানার্জি কাণ্ডে জহর সরকার কেন্দ্রের বিরুদ্ধে গিয়ে টুইটও করেছিলেন।

প্রসার ভারতীর সিইও থেকে তৃণমুলের রাজ্যসভার টিকিট। কেমন এই সফর?১৯৫২ সালে তাঁর জন্ম। সেন্ট জেভিয়ার্স স্কুল, প্রেসিডেন্সি কলেজ ও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন জহর সরকার। লন্ডনের কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়েও পড়াশোনা করেছেন তিনি। এরপর তিনি ১৯৭৫ সালে আইএএস হন। বর্ধমান, ২৪ পরগনায় সাম্প্রদায়িক হিংসার সময় তিনি সমস্যার মোকাবিলা করেছিলেন। ১৯৯০ সালে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সেলস ট্যাক্স কমিশনার পদ সামলিয়েছিলেন তিনি। পরবর্তী সময়ে ২০০৬ সালে তাঁকে ভারত সরকারের তরফে দিল্লিতে ডেকে পাঠানো হয়। ২০০৮ সাল থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত তিনি ভারতের সংস্কৃতি সংস্কৃতি মন্ত্রকের নেতৃত্ব দিয়েছেন। ইউনেস্কো সহ আরও কিছু অন্তর্জাতিক সংস্থায় ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন জহর। ২০১২ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত প্রসার ভারতীর সিইও পদে ছিলেন।

২০১৭ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত তিনি কলকাতার সেন্টার ফর স্টাডিস সোশাল সায়েন্সের বোর্ড অফ গভর্নরের সভাপতিত্ব করেছেন। অর্থ, বাণিজ্য, শিল্প সব সহ তিনি ১৭ বছর জনসেবামূলক কাজে যুক্ত ছিলেন জহর সরকার। দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্ৰীর সুনামধন্য এই সিভিল সারভেন্টকেই রাজ্যসভায় নিয়ে যেতে চাইছে তৃণমূল।

Comments
Loading...