৫৩ বছরে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হলেন ঝাড়খণ্ডের শিক্ষামন্ত্রী, বললেন, প্রমাণ করব শেখার কোনও বয়স হয় না

রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রীর পড়াশোনার দৌড় মাত্র ক্লাস টেন পর্যন্ত! হামেশাই এমন কটাক্ষ, টিটকিরি শুনতে হত ঝাড়খণ্ডের শিক্ষামন্ত্রী জগরনাথ মাহাতোকে। তার জবাব দিতে ৫৩ বছর বয়সে শিক্ষামন্ত্রী ভর্তি হলেন একাদশ শ্রেণিতে। বললেন, প্রমাণ করতে হবে শেখার কোনও বয়স নেই।

৫৩ বছরের জগরনাথ মাহাতো নিজের বিধানসভা, বোকারো জেলার দুমরি এলাকার নাবাডিহতে একটি সরকারি ইন্টার-কলেজে কলাবিভাগে ভর্তি হয়েছেন৷ স্কুলে ভর্তি প্রসঙ্গে মাহাতো বলেন, রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী হিসেবে আমার যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। যেহেতু আমি নিজেই দশম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেছি, অনেক টিটকিরি সহ্য করতে হয়েছে। এখন ভালো করে পড়াশোনা করতে হবে আমাকে। সেই সঙ্গে রাজ্যের শিক্ষা ব্যবস্থাকে আরও মজবুত করার চেষ্টা জারি থাকবে বলে জানান ঝাড়খণ্ডের শিক্ষামন্ত্রী।

ঝাড়খণ্ডে শিক্ষার উন্নতিতে রাজ্য জুড়ে মডেল স্কুল খুলছে সরকার। সোমবার সাংবাদিকদের সামনে সে বিষয়ে ঘোষণা করতে আসেন শিক্ষামন্ত্রী জগরনাথ মাহাতো। সেই সময়ে সবাইকে চমকে দিয়ে তিনি ঘোষণা করেন, নিজেও স্কুলে ভর্তি হচ্ছেন।

১৯৯৫ সালে চন্দ্রপুরার নেহেরু স্কুল থেকে সেকেন্ড ডিভিশনে মাধ্যমিক পাশ করেছিলেন জগরনাথ। মন্ত্রী জানান, আমি আমার শিক্ষা শেষ করব, কৃষিকাজের পাশাপাশি স্কুলে নিয়মিত ক্লাস করব। সবাই যাতে অনুপ্রাণিত হন, সেই চেষ্টাই করব।

কিন্তু এতদিন বাদে এই সিদ্ধান্ত কেন? জগরনাথ মাহাতোর কথায়, ”আমি যেদিন শিক্ষামন্ত্রীর পদে শপথ নিই, অনেকেই তখন বলেছিলেন, একজন দশম শ্রেণি পাশ মানুষ আর রাজ্যের কী শিক্ষার অগ্রগতি করবেন! তাঁদের জবাব দিতেই ফের ভর্তি হয়েছি স্কুলে। পড়াশোনার কোনও বয়স হয় না। আমি ভাল রেজাল্ট করে দেখিয়ে দেব। জগরনাথ মাহাতো জানান, শীঘ্রই ঝাড়খণ্ড জুড়ে ৪ হাজার ৪১৬ টি নতুন স্কুল খোলা হবে।

Comments
Loading...