জিওতে লগ্নি বাড়াল মার্কিন সংস্থা সিলভার লেক, দেড় মাসে ৯২ হাজার কোটিরও বেশি লগ্নি পাকা মুকেশ আম্বানীর সংস্থায়

একের পর এক মেগা ডিল মুকেশ আম্বানীর রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজে। শুক্রবারই জিও-তে ৯ হাজার ৯৩ কোটি টাকা বিনিয়োগের কথা ঘোষণা করেছে আবু ধাবির সরকারি নিয়ন্ত্রণাধীন লগ্নিকারী সংস্থা মুবাদলা৷ তার ১২ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই আরও একটি মেগা ডিল! মার্কিন প্রযুক্তি সংস্থা সিলভার লেক জিও প্ল্যাটফর্মের আরও ০.৯৩ শতাংশ অংশীদারি কেনার কথা ঘোষণা করেছে ৪৫৪৬.৮০ কোটি টাকায়।

গত ৪ মে জিও-তে ৫৬৫৫.৭৫ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছিল সিলভার লেক৷ এক মাসের মধ্যেই ফের ৪৫৪৬.৮০ কোটি টাকা বিনিয়োগের কথা জানাল তারা এবং তাদের সহকারী বিনিয়োগকারীরা৷ এর ফলে জিও-তে সিলভার লেক এবং তার সহকারী বিনিয়োগকারীদের মোট লগ্নির পরিমাণ দাঁড়াল ১০,২০২.৫৫ কোটি টাকা৷ আর জিও-তে সিলভার লেক-এর অংশীদারিত্বের পরিমাণ বেড়ে হল ২.০৮ শতাংশ৷

এই নিয়ে গত ৬ সপ্তাহের মধ্যে বিশ্বের তাবড় বিনিয়োগকারীরা ৯২,২০২.১৫ কোটি টাকা লগ্নি সেরে ফেলল মুকেশ আম্বানীর জিও-তে৷ এই তালিকায় রয়েছে ফেসবুক (৪৩,৫৭৩.৬২ কোটি টাকা), সিলভার লেক পার্টনার্স (৫৬৫৫.৭৫ কোটি টাকা), ভিস্তা ইক্যুইটি পার্টনার্স (১১,৩৬৭ কোটি টাকা), জেনারেল অ্যাটলান্টিক (৬৫৯৮.৩৮ কোটি টাকা), কেকেআর (১১,৩৬৭ কোটি টাকা), মুবাদলা (৯০৯৩.৬০ কোটি টাকা) এবং সিলভার লেক (৪৫৪৫.৮০ কোটি টাকা)।

এই মুহূর্তে দেশে রিলায়েন্স জিও-র গ্রাহক সংখ্যা ৩৮.৮০ কোটি৷ ব্রডব্যান্ড, স্মার্ট ডিভাইস, ক্লাউড অ্যান্ড এজ কম্পিউটিং, বিগ ডেটা অ্যানালিটিক্স, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স-এর মতো পরিষেবা ক্ষেত্রেও পা রেখেছে জিও৷ দেশের ছোট-বড় ব্যবসায়ী, ক্ষুদ্র ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান এমনকী কৃষকদের কাছে প্রযুক্তির সুবিধা পৌঁছে দেওয়াই তাদের মূল লক্ষ্য বলে জানাচ্ছে রিলায়েন্স।

আর ৪০ বিলিয়ন ডলার সম্পদ থাকা সিলভার লেক তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিনিয়োগকারীদের মধ্যে অন্যতম৷ Airbnb, আলিবাবা, ডেল টেকনোলজিস, ট্যুইটার, Alphabet’s Verily and Waymo Units-এর মতো অসংখ্য বিশ্ববিখ্যাত সংস্থায় বিনিয়োগ রয়েছে সিলভার লেকের৷

তাদের মোট বিনিয়োগ নিয়ে বলতে গিয়ে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর মুকেশ অম্বানী বলেন, দেশের ডিজিটাল ব্যবস্থাকে প্রত্যেক ভারতীয়ের কাছে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে সিলভার লেক এবং তার সহকারী বিনিয়োগকারীরা আমাদের অত্যন্ত মূল্যবান অংশীদার৷ আমরা তাদের আস্থা এবং সমর্থন পেয়ে খুশি, একই সঙ্গে বিশ্বের তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে তাদের নেতৃত্ব দেওয়ার অভিজ্ঞতা থেকেও আমরা উপকৃত হব। এতে ভারতের ডিজিটাল সমাজকেই বদলে দিতে পারি আমরা৷ মুকেশ আম্বানী আরও বলেন, কোভিড ১৯ মহামারি সত্ত্বেও মাত্র পাঁচ সপ্তাহের মধ্যে জিও-তে সিলভার লেক-এর অতিরিক্ত বিনিয়োগ ভারতীয় অর্থনীতির স্বকীয় শক্তিরই পরিচয় দেয়। ডিজিটাল শক্তির সঠিক বিকাশ হলে এই শক্তি আরও বৃদ্ধি পাবে৷

এই বিনিয়োগ নিয়ে সিলভার লেক-এর কো-সিইও এবং ম্যানেজিং পার্টনার ইগন ডারবান বলেন, আমাদের আরও বেশি সংখ্যক সহকারী বিনিয়োগকারীকে এই সুযোগটি দিতে পেরে এবং সস্তায় ভাল মানের ডিজিটাল পরিষেবা দেওয়ার জন্য জিও-র যে লক্ষ্য তাতে সহযোগিতা করতে পেরে আমরা অত্যন্ত খুশি৷

Comments
Loading...