নন্দীগ্রামে ঢোকার আগে নাকে খত দিন মিঠুন! কেন বললেন কুণাল ঘোষ?

কেন এমন কথা বললেন কুণাল? তার উত্তরও দিয়েছেন প্রাক্তন সাংসদ কুণাল

সদ্য বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। এবার নন্দীগ্রামে প্রচারে যাবেন মিঠুন চক্রবর্তী। সূত্রের খবর, ৩০ মার্চ অর্থাৎ নন্দীগ্রামে ভোটের প্রচারের শেষ দিন জমি আন্দোলনের আঁতুড় ঘরে বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর হয়ে রোড শো করার কথা মহাগুরুর। এবার এই ইস্যুতেই মিঠুনকে কড়া ভাষায় আক্রমণ শানাল তৃণমূল। মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন, নন্দীগ্রামে ঢোকার আগে যেন নাকে খত দেন মহা তারকা।
কেন এমন কথা বললেন কুণাল? তার উত্তরও দিয়েছেন প্রাক্তন সাংসদ কুণাল।
কুণাল ঘোষের অভিযোগ, নন্দীগ্রাম আন্দোলনের সময় তৎকালীন বামফ্রন্ট সরকারের হয়ে পথে নেমেছিলেন মিঠুন চক্রবর্তী।
কী হয়েছিল?
নন্দীগ্রামে জমি আন্দোলন তখন মধ্য গগনে। বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের সরকারের বিরুদ্ধে পথে নামেন রাজ্যের বিদ্দ্বজনেরা। শঙ্খ ঘোষ, কবীর সুমন, কৌশিক সেন, অপর্ণা সেন, বিভাস চক্রবর্তীদের পাশাপাশি সেদিন কলকাতার রাজপথে নেমেছিলেন হাজার হাজার সাধারণ মানুষ। এক অন্য ধারার মহা মিছিলের সাক্ষী হয়েছিল মিছিল নগরী কলকাতা।
সাধারণ নাগরিকদের পথে নামার পরই পাল্টা সিপিএম ঘনিষ্ঠ বিদ্দ্বজনেদের পথে নামানো হয়। কুণালের অভিযোগ, বাম সরকারের সেই মিছিলে একেবারে প্রথম সারিতে ছিলেন মিঠুন। মহাগুরু আসলে নন্দীগ্রামের আন্দোলনকারীদের বিরোধিতা করে মিছিল করেন।
তাই বিজেপির হয়ে প্রচারে যাওয়ার সময় নন্দীগ্রামের মাটিতে নাকে খত দিয়ে প্রায়শ্চিত্ত করার দাবি মিঠুনের কাছে রেখেছেন কুণাল ঘোষ।
এখানেই শেষ নয়, কুণালের বিস্ফোরক অভিযোগ, মমতা ব্যানার্জি মিঠুনকে এত কিছু দেওয়া সত্ত্বেও যেভাবে তিনি বিজেপির হাত ধরলেন তাতে বাঙালি অপমানিত।
পাশাপাশি পরিসংখ্যান তুলে ধরে কুণাল ঘোষের দাবি, অতীতে মিঠুন যাঁদের হয়ে প্রচারে গেছেন, তাঁরাই ভোটে হেরেছেন। উদাহরণ হিসেবে কুণাল ঘোষ তুলে ধরেন, রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা দাপুটে সিপিএম নেতা প্রয়াত সুভাষ চক্রবর্তীর স্ত্রী রমলা চক্রবর্তীর হয়েও রোড শো করেছিলেন মিঠুন। কুণাল ঘোষ বলেন, সেই ভোটে তৃণমূলের সুজিত বসুর কাছে হেরে যান রমলা চক্রবর্তী।
কুণাল ঘোষের দাবি, শুভেন্দুর হয়ে নন্দীগ্রামে প্রচারে এলেও মিঠুনের ট্র্যাক রেকর্ড বদলাবে না। কুণালের কটাক্ষ, সিপিএম প্রার্থী মীনাক্ষী মুখার্জিরও পিছনে শেষ করবেন শুভেন্দু।

Comments
Loading...