টাকা বিলোচ্ছে ধরিয়ে দিলেই চাকরি! ওন্দার সভা থেকে ঘোষণা মমতার

মমতা ব্যানার্জির প্রশ্ন, ভোট ঘোষণা হওয়ার পর রাজ্যের পুলিশ যদি কমিশনের নিয়ন্ত্রণে চলে যায়, তাহলে কেন্দ্রীয় পুলিশ কেন কেন্দ্রের সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকবে?

প্রতিটি জনসভা থেকেই তৃণমূল নেত্রী অভিযোগ করছেন, বিজেপি বাংলায় টাকা বিলিয়ে ভোট লুঠ করতে চাইছে। তৃণমূলের নেত্রীর বার্তা, যদি বিজেপি টাকা দিতে আসে, টাকাটা নিয়ে ভালো করে মাংস ভাত খেয়ে নেবেন, আর ভোটের বাক্সে বিজেপিকে বিদায় দিয়ে দেবেন। বুধবার ওন্দার জনসভা থেকে তৃণমূল নেত্রীর নয়া ঘোষণা, ভোটে টাকা বিলি করছে বিজেপি, ধরিয়ে দিতে পারলেই একটি পুরস্কার একটি চাকরি।
তৃণমূল নেত্রী বিজেপির বিরুদ্ধে বহিরাগত ইস্যু তুলে সুর চড়িয়েছেন। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় এজেন্সি ব্যবহার করে বিজেপি ভোট যুদ্ধ পেরোতে চাইছে বলে তৃণমূলের তরফ থেকে অভিযোগ করে কমিশনে জানানো হয়েছে। বুধবারও তৃণমূল নেত্রীর বক্তব্যে উঠে আসে সেই প্রসঙ্গ। বাঁকুড়ার ওন্দার সভা থেকে মমতা ব্যানার্জি বলেন, রাতের অন্ধকারে টাকা বিলি করা হচ্ছে। মা বোনেদের বলছি, কারা টাকা বিলোচ্ছে সেদিকে কড়া নজর রাখুন। এরপরই তৃণমূল নেত্রীর প্রতিশ্রুতি, যারা টাকা বিলি করছে তাদের ধরিয়ে দিতে পারলেই পুরস্কার মিলবে। কী সেই পুরস্কার? তার জবাবও দিয়েছেন মমতা ব্যানার্জি। তিনি বলেন, হাতেনাতে ধরতে পারলেই চাকরি দেওয়া হবে।

[আরও পড়ুন- জোড়া জাতি শংসা পত্র মালদার বিজেপি প্রার্থীর! অভিযোগ বিজেপির নেতার]

মমতা ব্যানার্জির প্রশ্ন, ভোট ঘোষণা হওয়ার পর রাজ্যের পুলিশ যদি কমিশনের নিয়ন্ত্রণে চলে যায়, তাহলে কেন্দ্রীয় পুলিশ কেন কেন্দ্রের সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকবে? বহিরাগতদের রুখতে মমতা বাংলার ‘মা বোনেদের’ বার্তা দিয়েছেন। কর্মী সমর্থকদের সজাগ থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। তবে তৃণমূল নেত্রীর চাকরির ঘোষণা এক্কেবারে নতুন। বিজেপির মত প্রতিপক্ষের সঙ্গে লড়ার জন্য কর্মীদের মনোবল চাঙ্গা রাখতেই মুখ্যমন্ত্রীর বার্তা, মত রাজনৈতিক মহলের একাংশের। যদিও বিরোধীরা মমতার এই মন্তব্যের বিরোধিতা করেছে।

Comments
Loading...