কোনও ‘ক্যা-কু’ চলবে না, অনলাইনে সিএএ চালুর খবর অপপ্রচার বলে উড়িয়ে দিলেন মমতা

মঙ্গলবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার পাথরপ্রতিমায় সরকারি পরিষেবা প্রদান অনুষ্ঠান থেকে মমতা ফের কেন্দ্রের নয়া নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দেন। মমতার অভিযোগ, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন অনলাইনের মাধ্যমে করার বিষয়টি গুজব ছাড়া কিছুই নয়। তাঁর কটাক্ষ, অনলাইনে কি ভাত রান্না করা যায়। অনলাইনে কোনও দরখাস্ত করা যেতে পারে, কিন্তু চাল ফোটে না। মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, শারীরিক উপস্থিতি ছাড়া নাগরিকত্ব আইন চালু করা সম্ভব নয়। তাই বিষয়টিও বিজেপির অপপ্রচার ছাড়া আর কিছুই নয়। তাঁর বার্তা, ভোটার লিস্টে নাম তুলে নিন। এটা আপনার নিজস্ব স্বার্থ ও অধিকার। কিন্তু কেউ বাড়ি গিয়ে বাবার নাম, জন্মস্থান জানতে চাইলে দেবেন না। সংশোধনী নাগরিকত্ব আইনকে ‘ক্যা-কু’ বলে ব্যঙ্গ করে মমতা বলেন, সিএএ, এনআরসি কিংবা এনপিআর, কোনওটাই এ রাজ্যে হবে না। রাজ্যের একটি নাগরিকের অধিকার কাড়তে এলে তাঁর মৃতদেহের উপর দিয়ে যেতে হবে বলে ফের হুঁশিয়ারি দেন তিনি।
মমতা বলেন, আমরা যাঁরা এ রাজ্যে বাস করি, সবাই নাগরিক। কারও ভিক্ষায় বা দয়ায় থাকি না। যে সাধারণ মানুষ ভোট দিয়ে সরকার গড়ে তাদের অধিকার কোনওভাবেই কাড়তে দেব না। পাথরপ্রতিমায় মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা, আপনাদের অধিকার রক্ষায় পাহারাদার হিসেবে তৈরি আছি। পাশাপাশি তাঁর আরও ঘোষণা, যেভাবে এনআরসি, এনপিআর ও সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলন চালাচ্ছে তৃণমূল, তা জারি থাকবে। রাজ্যবাসীর উদ্দেশে মুখ্যমন্ত্রীর বার্তা, নিজেদের কাজ করে যান, বাদবাকি বিষয় আমার উপর ছেড়ে দিন।

Comments
Loading...