ভোটের জন্য মানুষের মধ্যে ভাগাভাগি করছে বিজেপি, অসম ইস্যুতে কেন্দ্রকে আক্রমণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

অসমে নাগরিকপঞ্জির খসড়া তালিকা থেকে ৪০ লক্ষ মানুষকে বাদ দেওয়া অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক এবং এর পেছনে বিজেপির ভোটের রাজনীতি রয়েছে বলে সরাসরি অভিযোগ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার দুপুরে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করে এই ইস্যুতে কেন্দ্রকে তীব্র আক্রমণ করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, বিজেপি ভোটের জন্য মানুষের মধ্যে ভাগাভাগি করছে। এ ব্যাপারে তিনি কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহের সঙ্গেও দিল্লিতে দেখা করে কথা বলার চেষ্টা করবেন বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। অসমে তৃণমূল সাংসদদের একটি প্রতিনিধি দল পাঠানো হবে বলেও জানান তিনি। দরকার হলে তিনি নিজেও অসমে যাবেন বলে জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
এদিনই দুপুরে দিল্লি যান মুখ্যমন্ত্রী। তার আগে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেন, অসমের পরিস্থিতি নিয়ে তিনি উদ্বিগ্ন। যাঁদের অসম থেকে তাড়ানো হচ্ছে তাঁদের পাশে তিনি আছেন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, এই ৪০ লক্ষ মানুষের মধ্যে বহু হিন্দুও আছেন, বিহারী আছেন। পশ্চিমবঙ্গের উত্তরবঙ্গ এবং মুর্শিদাবাদের অনেকে আছেন। তাঁরা সেখানে ৫০-৬০ বছর ধরে আছেন। কিন্তু নির্বাচনের জন্য বিজেপি মানুষের মধ্যে ভাগাভাগি করছে। তিনি বলেন, অসম থেকে বাঙালি খেদাও চলছে। এর ফলে বাংলাদেশ এবং পশ্চিমবঙ্গ সবচেয়ে সমস্যায় পড়বে। মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, অসমে সমস্ত যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ করে আধা সেনা নামোনো হচ্ছে। এর মধ্যে দিয়ে সাধারণ মানুষকে বুলডোজ করার চক্রান্ত করছে সেখানকার সরকার। দেশের নাগরিকদের শরনার্থী বানানোর এই চক্রান্ত তাঁরা মানবেন না বলেও জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
দিল্লি যাওয়ার আগে মুখ্যমন্ত্রী জানান, সেখানে গিয়ে তিনি অসম ইস্যুতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবেন। পাশাপাশি মঙ্গলবার অরুণ জেটলিকে দেখতে যাওয়ার কথা রয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর।

Comments
Loading...