পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার খবরে যখন শোকে পাথর সারাদেশ ঠিক তখন করবেট পার্কে নিজের প্রচারমূলক তথ্যচিত্রের শ্যুটিংয়ে ব্যস্ত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী? শুধু তাই নয়, হামলার পর নিরাপত্তা বাহিনী যখন সিআরপিএফ জওয়ানদের শতচ্ছিন্ন দেহাংশ সংগ্রহ করছেন বিস্ফোরণস্থল থেকে, তখন চা-সিঙ্গারা সহযোগে গল্পে মশগুল নরেন্দ্র মোদী! চাঞ্চল্যকর অভিযোগ কংগ্রেসের।

১৪ ফেব্রুয়ারি জঙ্গি হানার পর কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী সরকারের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছিলেন। এই ক’দিন তাঁর দল কোনও রাজনৈতিক আক্রমণে যাবে না বলে জানিয়েছিলেন কংগ্রেস সভাপতি। পুলওয়ামার ঘটনার পর কেটে গিয়েছে সাত দিন। এবার আক্রমণের পথে হাঁটল কংগ্রেস। তাতে রসদ যোগালো মোদীর শ্যুটিং করার এই ছবি।
বৃহস্পতিবার কংগ্রেস মুখপাত্র রনদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা এক সাংবাদিক বৈঠকে অভিযোগ করেন, পুলওয়ামার হামলার দিন তথ্যচিত্র শ্যুটিংয়ের কাজে ব্যস্ত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।
সুরজেওয়ালা বলেন, জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটে দুপুর ৩ টে ১০ নাগাদ। আর ওই দিন প্রধানমন্ত্রীর শ্যুটিং চলে সন্ধে ৬ টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত। অর্থাত্ ভয়াবহ হামলার খবর পাওয়ার পরও চলছিল শ্যুটিং ! তোপ সুরজেওয়ালার।
গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ডিসকভারি চ্যানেলের জন্য জিম করবেট ন্যাশনাল পার্কে তথ্যচিত্রের শুটিং করছিলেন প্রধানমন্ত্রী। সেই তথ্যচিত্রে উঠে আসবে মোদীর হিমালয়-বাসের দিনগুলির কথা। সুরজেওয়ালা সেই ঘটনা টেনে এনে বলেন, গোটা দেশ যখন শোকে ডুবে তখন প্রধানমন্ত্রী তাঁর হিমালয়ের দিনযাপনের তথ্যচিত্র নির্মাণে মগ্ন ছিলেন। রনদীপ সিংহ সুরজেওয়ালার আরও দাবি, শ্যুটিং পর্বে চা এবং সিঙ্গারাও খেয়েছেন মোদী। কংগ্রেস মুখপাত্র বলেন, এটা ঘৃণ্য ও লজ্জাজনক ঘটনা। দেশের মানুষ যখন শোকে খাওয়ার কথা ভুলে গিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী তখন শুটিং ইউনিটের সঙ্গে চা সিঙ্গারা খাচ্ছেন! সুরজেওয়ালার প্রশ্ন, বিশ্বের কোথাও এমন প্রধানমন্ত্রী খুঁজে পাবেন? ক্ষমতার লোভে মত্ত হয়ে মোদী রাজধর্ম ভুলেছেন বলেও কটাক্ষ তাঁর।

You may also like