বিপাকে জি নিউজ, মহুয়া মৈত্রের করা মানহানি মামলায় সুধীর চৌধুরীর বিরুদ্ধে সমন জারি করল আদালত

বিপাকে জি নিউজের এডিটর ইন চিফ সুধীর চৌধুরী। তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্রের দায়ের করা মানহানির মামলায় সুধীর চৌধুরীর বিরুদ্ধে সমন জারি করল দিল্লির একটি আদালত। আগামী বছরের ২৯ শে জানুয়ারি সুধীর চৌধুরীকে আদালতে হাজির হতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ।
এর আগে দিল্লিরই একটি নিম্ন আদালত মানহানির মামলায় স্থগিতাদেশ জারি করেছিল। নিম্ন আদালতের এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে দিল্লি হাইকোর্টে যান মহুয়া মৈত্র। গত ২৫ শে সেপ্টেম্বর দিল্লি হাইকোর্ট নিম্ন আদালতের রায়কে খারিজ করে জি নিউজের এডিটর ইন চিফ সুধীর চৌধুরীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা চালানোর নির্দেশ দেয়। তারপর সোমবার সুধীর চৌধুরীর বিরুদ্ধে সমন জারি করে দিল্লির আদালত।
দিল্লি হাইকোর্টে তৃণমূল সাংসদ সওয়াল করেছিলেন, প্রাক্ সমন পর্বে পৌঁছে যাওয়া কোনও মামলা এভাবে নিম্ন আদালত স্থগিত ঘোষণা করতে পারে না। এটা নিম্ন আদালতের এক্তিয়ার বহির্ভূত। দিল্লি হাইকোর্ট মহুয়া মৈত্রের আইনজীবী এবং বিরোধী পক্ষের সওয়াল জবাব শোনার পর মামলা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেন।
মানহানি মামলার আবেদনপত্রে কৃষ্ণনগরের সাংসদ দাবি করেন, গত ২৫ শে মে সংসদে তাঁর ভাষণ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিউজিয়ামে হলোকাস্ট পোস্টার থেকে অনুপ্রাণিত, যেখানে ফ্যাসিবাদের ১৪ টি লক্ষণের কথা লেখা আছে, তা যথার্থভাবেই উল্লেখ করা হয়েছিল। কোনওভাবেই তা গোপন করা কিংবা চেপে যাওয়া হয়নি।
সেখানে তৃণমূল সাংসদ অভিযোগ করেন, জি নিউজ চ্যানেল এই সংক্রান্ত একটি অনুষ্ঠান সম্প্রচার করে এবং তাতে মহুয়ার ভাষণকে ঘৃণা-মিশ্রিত ভাষণ হিসেবে অভিহিত করা হয়।
একইভাবে জি নিউজের তরফেও মহুয়া মৈত্রের বিরুদ্ধে পাল্টা একটি মানহানির মামলা দায়ের করা হয়। যেখানে অভিযোগ করা হয়, মহুয়া মৈত্র জি নিউজ চ্যানেলের বিরুদ্ধে বিবৃতি দিয়েছেন। প্রসঙ্গত, উপরোক্ত অনুষ্ঠান সম্প্রচার করার পর জি নিউজের একজন সাংবাদিক মহুয়া মৈত্রের কাছে তাঁর প্রতিক্রিয়া জানতে চান, সেই সময় মহুয়া মৈত্র তাঁর বিরুদ্ধে তোলা জি নিউজের অভিযোগ নিয়ে নিজের মতামত ব্যক্ত করেছিলেন।

 

Comments
Loading...