নাট্যকার সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে একাধিক মহিলার যৌন হেনস্থার অভিযোগে উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া, অস্বীকার অভিযুক্তের

কখনও ভয়েস ট্রেনিং আবার কখনও শারীরিক অভিনয় শেখানো। নানা অজুহাতে দিনের পর দিন মহিলা অভিনেতাদের সঙ্গে অসভ্যতা করার অভিযোগ দ্য হেরিটেজ অ্যাকাডেমির মিডিয়া সায়েন্সের অধ্যাপক তথা অভিনেতা ও নাট্যকার সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। এক অভিনেতার এই সংক্রান্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে তোলপাড় ফেসবুক। এবার একের পর এক মহিলা তুলছেন একই অভিযোগ।

বুধবার রাত ১০ টা নাগাদ ফেসবুকে ওই অধ্যাপকের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ তুলে একটি পোস্ট করেন এক তরুণী। তাতে কীভাবে ওই অধ্যাপক অভিনয় শেখানোর ছুতোয় তাঁর শরীর স্পর্শ করেছেন, তার বিস্তারিত বর্ণনা দেন। তিনি জানান, নাটকের একটি চরিত্রে অভিনয় করতেন তিনি। অভিনেতার অভিযোগ, নাটকের ৩ টি শো হয়ে যাওয়ার পর একদিন পরিচালক সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায় তাঁকে বলেন, একটি দৃশ্যে তাঁর অভিনয় মন মতো হচ্ছে না। তাই সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায় তাঁকে নিজের বাড়িতে ডেকে অভিনয় শেখানোর কথা বলেন। সেখানেই অভিনয় শেখানোর ছুতোয় অভিনেতার শ্লীলতাহানি করেন পরিচালক সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায়, বলে অভিযোগ। মানসিকভাবে ভেঙে পড়া অভিনেতা ঘটনার কথা সাহস করে কাউকে বলতে পর্যন্ত পারেননি।

কিছুদিন পর মানসিক স্থিতি ফিরলে অভিনেতা বিষয়টি নিয়ে অভিযুক্ত পরিচালকের সঙ্গে কথা বলতে চান। কিন্তু অভিযোগ, হোয়াটসঅ্যাপে এই সংক্রান্ত প্রশ্ন করার পরই সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায় উত্তর দেওয়া তো দূর অস্ত, তাঁকে ব্লক করে দেন। অভিনেতার দাবি, অভিযুক্তের স্ত্রীও ঘটনার কথা জানতেন এবং অভিনেতাকে বিষয়টি চেপে যাওয়ার আবেদন করেন। অভিযুক্ত সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায়ের নাটকের গ্রুপেও বিষয়টি নিয়ে বিশেষ উচ্চবাচ্য করা হয়নি বলেও ফেসবুক পোস্টে জানিয়েছেন অভিনেতা।

গত ১৪ ই অক্টোবর, সোমবার এবিষয়ে দ্য হেরিটেজ অ্যাকাডেমিতে লিখিত অভিযোগ জানান অভিনেতা। ১৬ তারিখ কলেজ থেকে তাঁকে ফোন করে একটি বৈঠকে হাজির থাকার কথা জানানো হয়। সেই বৈঠকে গিয়ে তিনি জানতে পারেন, একদিন আগে অর্থাৎ ১৫ ই অক্টোবর, মঙ্গলবার সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায় ইস্তফা দিয়েছেন।

অভিনেতার এই অভিযোগ ফেসবুকে আসতেই তা শেয়ার হতে থাকে ঝড়ের বেগে। কার্যত একই অভিজ্ঞতার কথা লিখতে শুরু করেন আরও অনেক মহিলা।

সকলেই অভিনয় শেখানোর অজুহাতে শ্লীলতাহানির অভিযোগ করেছেন সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে।

অভিযুক্ত সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায়

আমরা অভিযুক্তের মত জানতে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছিলাম। সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায় thebengalstory কে জানিয়েছেন, ‘এই অভিযোগের সঙ্গে সত্যের কোনও যোগ নেই। আমি বরাবর নারী স্বাধীনতার পক্ষে। আলোচ্য নাটকেও সেই সওয়ালই বারবার করা হয়েছে। আমার সামাজিক সম্মান ধুলোয় মেশাতে মিথ্যে অভিযোগ করা হচ্ছে’।

ফেসবুকে সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা অভিনেতা জানিয়েছেন, অভিযুক্তের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ রয়েছে আরও একাধিক মহিলার। তার মধ্যে কয়েকজন ইতিমধ্যেই ফেসবুকে পোস্টও করেছেন। সব কটি অভিযোগ একসঙ্গে নিয়ে পুলিশে অভিযোগ জানানোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাঁরা। অভিনেতার আশা, তিনি যখন গোটা ব্যাপারটি প্রকাশ্যে আনার সাহস দেখিয়েছেন, তাঁকে দেখে আরও অনেক মহিলাই নিজেদের কুৎসিত অভিজ্ঞতার কথা জানাবেন এবং অভিযুক্তের কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা হবে।

 

(অভিযোগের গুরুত্ব বিবেচনা করে আমরা অভিযোগকারীনিদের নাম গোপন রাখছি। জায়গার অভাবের কারণে ফেসবুক পোস্টের বিশেষ কিছু নির্বাচিত অংশই এই প্রতিবেদনে দিতে পারছি।)

Comments
Loading...