লাগাতার দলবিরোধী বক্তব্য, মুর্শিদাবাদের মোশারফকে বহিস্কার করল তৃণমূল

দাদা অধীরের কাছেই ফিরবেন, জানাচ্ছেন মোশারফ হোসেন

মুখ্যমন্ত্রীর সভায় গরহাজির থেকে একের পর এক দলবিরোধী মন্তব্য। বহিস্কৃত হলেন মুর্শিদাবাদের জেলা পরিষদের সভাধিপতি মোশারফ হোসেন। বিজেপিতে নয়, ফিরব দাদার কাছেই। বহিস্কারের পর জানালেন মোশারফ হোসেন।

বুধবার তৃণমূলের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে মোশারফ আরও জানান দল থেকে বহিস্কার করা হলেও জেলা সভাধিপতি পদ সাংবিধানিক। অবশেষে মুক্তি পাওয়া গেল, দলে থেকে দমবন্ধ হয়ে গিয়েছিল বলেও জানান একদা অধীর ঘনিষ্ঠ মোশারফ। তৃণমূল ত্যাগী অর্থাৎ বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে বহরমপুরে নিয়ে গিয়েছিলেন মোশারফ বলে অভিযোগ উঠে এসেছিল। এরপর থেকেই ঘাসফুল শিবিরের সঙ্গে দূরত্ব বাড়তে শুরু করে তাঁর। উল্লেখ্য, শুভেন্দু অধিকারী ছিলেন মুর্শিদাবাদের তৃণমূল পর্যবেক্ষক। সেই সময়ে তাঁর সঙ্গে সু-সম্পর্ক ছিল মোশারফের। এই প্রসঙ্গে এদিন মোশারফ জানান, শুভেন্দুর সঙ্গে সু-সম্পর্ক থাকবে, কিন্তু বিজেপিতে যোগ দেবনা কিছুতেই।

[আরও পড়ুন- অব্যাহতি চেয়ে মমতাকে চিঠি চিরঞ্জিতের, ফিরতে চান সিনেমায়]

বুধবার বহরমপুরের একটি অনুষ্ঠানগৃহে জেলা পরিষদের সব সদস্য, বিধায়ক ও নেতাদের নিয়ে বৈঠক ডাকেন তৃণমূল জেলা সভাপতি আবু তাহের খান। এই বৈঠকের পরেই মোশারফকে দল থেকে বহিস্কার করার সিদ্ধান্ত নেয় তৃণমূল নেতৃত্ব। এরআগে মঙ্গলবার বিকেলে কলকাতায় সুব্রত মুখোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিমের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন মুর্শিদাবাদের তৃণমূল জেলা সভাপতি আবু তাহের খান।

বহিস্কৃত হওয়ার পরেই বাম-কং জোটে নাম লেখাবেন বলে জানিয়েছেন একদা অধীর চৌধুরী ঘনিষ্ঠ মোশারফ। ১৯ তারিখ বহরমপুরে অধীর চৌধুরির নেতৃত্বে সভা করবে কংগ্রেস। সেই সভায় কি থাকবেন মোশারফ? তাঁর কথায়, ২০১৬ সালে মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদে তৃণমূলের সদস্য সংখ্যা ছিল ১। আমি ৪২ জন কংগ্রেস সদস্যকে নিয়ে তৃণমূলে গিয়েছিলাম। তিনি দাবি করেন, আর কয়েকদিন পর আবার তৃণমূল-বিজেপি এক হয়ে যাবে।

 

Comments
Loading...