অবিজেপি দলগুলিকে নিয়ে ডিসেম্বরে ব্রিগেড সমাবেশ চান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

চলতি বছরের শেষে অবিজেপি দলগুলিকে নিয়ে বিগ্রেডে সভার পরিকল্পনার কথা জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার শিলিগুড়ির উত্তরকন্যায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, দেশজুড়ে বিজেপির ওপর সাধারণ মানুষের আস্থা কমছে। তাই অবিজেপি দলগুলি যারা চাইবে বিজেপি বিরোধী ফ্রন্টে থাকতে, তারা সবাই স্বাগত। বাম দলগুলিকেও আমন্ত্রণ জানানো হবে কিনা, এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন গণতন্ত্রকে বাঁচানোর লড়াইতে সবাইকেকে স্বাগত।
যদিও এদিনই কলকাতায় এক সাংবাদিক সম্মেলনে সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি তৃণমূল নেত্রীর এই মন্তব্যকে পাল্টা কটাক্ষ করে বলেন, ‘যাঁরা নিজেরাই রাজ্যে গণতন্ত্র বিরোধী কাজ করছেন, তাঁরাই আবার গণতন্ত্রকে রক্ষার কথা বলছেন’। তাঁর আরও কটাক্ষ, আসলে তৃণমূল-বিজেপি সবই এক।
২০১৯ সালের লোকসভা ভোটের আগেই সারা দেশে বিজেপি বিরোধী দলগুলির ক্রমশ মাথা তুলে দাঁড়ানো এবং জোটবদ্ধ হওয়ার প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে। উত্তরপ্রদেশে উপনির্বাচনে অখিলেশ-মায়াবতীর বহু চর্চিত বুয়া-ভাতিজা জোটের কাছে নতিস্বীকার করেছে বিজেপি। নবান্নে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধায়ের সঙ্গে দেখা করে গেছেন তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেও একাধিকবার দিল্লি গিয়ে বিজেপি বিরোধী ফ্রন্ট গড়ে তুলতে মায়াবতী, অরবিন্দ কেজরিওয়ালদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। সম্প্রতি বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার মন্তব্য করেছেন, ‘বিহারে বিজেপির সঙ্গে জোট মানেই সারা দেশেই তা হবে এমন কোনও কথা নেই। এই পরিস্থিতে মুখ্যমন্ত্রীর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই বক্তব্য ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের আগে বিজেপি বিরোধী অক্ষ গড়ে তোলার সম্ভাবনাকে আরও উস্কে দিল বলে মনে করছেন রাজনৈতিক ওয়াকিবহাল মহল।

Comments
Loading...