পাক প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের ৩৩ টি বিলাসবহুল গাড়ি নিলামে চড়ানোর নির্দেশ জারি করলেন ইমরান

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ নিয়েই সরকারের খরচা কমানোর জন্য একগুচ্ছ ঘোষণা করেছিলেন ইমারান খান। জানিয়েছিলেন, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ব্যয়বহুল জীবনে রাশ টানবেন তিনি। পাকিস্তানের ধুঁকতে থাকা অর্থনীতির উদাহারণ টেনে ফতোয়া দিয়েছিলেন, দেশের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ কোনও পদাধিকারী বিমানের প্রথম শ্রেণীতে যাতায়াত করতে পারবেন না। পাশাপাশি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর জন্য তাঁর বাসভবনে যে বিপুল সংখ্যক গাড়ি রয়েছে তাও নিলামে তুলবেন। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর ব্যবহারের জন্য বিভিন্ন মডেলের প্রায় ৮০ টি রয়েছে বলে জানা গিয়েছিল তখন। যার মধ্যে অধিকাংশই বুলেট প্রুফ। সূত্রের খবর, প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের ৩৩ টি বিলাসবহুল এবং দামী গাড়ি নিলামে তোলার কথা ঘোষণা করা হল শুক্রবার। নিলাম হতে চলা এই ৩৩ টি বিলাসবহুল গাড়ির তালিকা তৈরি হয়েছে। তা প্রকাশও করা হয়েছে। ইসলামাবাদে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর এই গাড়িগুলি নিলামে তোলা হবে।

নিলাম হতে চলা গাড়ির যে তালিকা পাক প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের পক্ষ থেকে প্রকাশ করা হয়েছে তা দেখে চোখ কপালে উঠতে পারে। পাক সংবাদপত্র ‘দ্য ডন’এর রিপোর্ট অনুযায়ী ৩৩ টি গাড়ির এই তালিকায় রয়েছে, ৮ টি বিএমডব্লু, যার মধ্যে তিনটি গাড়ি ২০১৪ মডেলের, ৩ টি গাড়ি ৫ হাজার সিসি এসইউভি সিরিজের ও বাকি ২ টি ৩ হাজার সিসি এসইউভি সিরিজের। তালিকায় রয়েছে ২০১৬’র মডেলের ৪ টি মার্সিডিজ বেঞ্জ, ৪ টি বুলেট প্রুফ ল্যান্ড ক্রূজার গাড়ি। এছাড়াও নিলাম হতে চলা এই বিলাসবহুল গাড়ির তালিকায় আছে ১৬ টি দামি টয়োটা গাড়িও। সূত্রের খবর, প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে যে ৮০ টি গাড়ি রয়েছে তার মধ্যে ৩০ টি গাড়ি বুলেট প্রুফ। এক একটি বুলেট প্রুফ গাড়ির দাম ৪-৫ কোটি টাকা। এছাড়া অন্য যে সাধারণ গাড়ি রয়েছে তার প্রত্যেকটির দামও অন্তত ৪০-৫০ লক্ষ টাকা। প্রধানমন্ত্রীর এই দামী গাড়ি নিলামে চড়ানোর নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, যে কেউ নিলামে অংশ নেওয়ার জন্য আবেদন করতে পারেন। প্রত্যেকটি গাড়ির একটি বেস প্রাইজ রাখা হচ্ছে। ১৭ ই সেপ্টেম্বর সকাল ১০ টায় প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনেই নিলামের আসর বসবে। নিলামে অংশ নেওয়ার জন্য পাকিস্তানের শিল্পপতিদের বিশেষ করে আহ্বান জানানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন সূত্রে জানানো হয়েছে, নিলামে পাওয়া পুরো টাকাই সরকারি কোষাগারে জমা করা হবে।
প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনেও তিনি নিজে থাকবেন না বলে জানিয়েছেন ইমরান। তার বদলে তিন কামরার একটি ফ্ল্যাটে থাকবেন তিনি। ইমরানের পরবর্তী ঘোষণা, প্রধানমন্ত্রী নিবাসে আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয় গড়বে সরকার। তবে দায়িত্ব নেওয়ার দু’সপ্তাহের মধ্যেই যেভাবে ইমরান প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীদের ব্যবহার করা গাড়ি নিলামে চড়ানোর ঘোষণা পূরণ করতে চলেছেন, তাতে দেশে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গেছে।

Comments
Loading...