লোকসভার আগে পঞ্চায়েত ভোট চায় না বিজেপি-সিপিএম, তাই তারা মামলা করে ভোট বন্ধের চেষ্টা করছেঃ সুব্রত মুখোপাধ্যায়

বিজেপি এবং সিপিএম একসঙ্গে পরিকল্পনা করে পঞ্চায়েত ভোট বন্ধ করার জন্য মামলা করেছে বলে অভিমত রাজ্যের পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের। শুধু তাই নয়, সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের অভিযোগ, লোকসভা ভোটের আগে পঞ্চায়েত ভোট হোক চায় না বিরোধীরা। সেই কারণেই তারা বারবার অকারণে মামলা-মোক্কদমা করে ভোট পিছিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে।
রাজ্য নির্বাচন কমিশন এর আগে ১, ৩ এবং ৫ মে পঞ্চায়েত ভোট করতে চেয়ে নির্দেশিকা জারি করেছিল। বিরোধীদের মামলার জন্য যা ইতিমধ্যেই বাতিল হয়েছে। এরপর রাজ্য সরকারের পরামর্শ মতো নির্বাচন কমিশন ১৪ মে পঞ্চায়েত ভোটের দিন ঘোষণা করেছে। কিন্তু ১৪ তারিখও ভোট হবে কিনা তা নিয়ে ইতিমধ্যেই সংশয় তৈরি হয়েছে। কারণ, বিরোধীরা ফের আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে। মঙ্গলবার এই মামলার ওপর হাইকোর্টের সিঙ্গল বেঞ্চে শুনানি হয়। আদালত জানিয়েছে, ৪ মে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির বেঞ্চে ফের এই মামলার শুনানি।
বারবার মামলার পরিপ্রেক্ষিতে আদৌ ১৪ তারিখও রাজ্যে পঞ্চায়েত ভোট হবে কিনা তা নিয়েই অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার চাইছিল, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পঞ্চায়েত ভোট সেরে ফেলতে। কিন্তু বারবার তা প্রশ্নের মুখে পড়ে যাওয়ায় তিনি অত্যন্ত ক্ষুব্ধ। বুধবার রাজ্যের পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় জানান, আমরা যে কোনও সময় ভোটের জন্য প্রস্তুত আছি। কিন্তু বিরোধীরা ভোট চায় না। সেই কারণেই বারবার মামলা করে তারা ভোট বাতিলের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের অভিযোগ, ‘এই ষড়যন্ত্রে সামিল হয়েছে বিজেপি-সিপিএম। দুই দল একযোগে পরিকল্পনা করেই লোকসভা ভোটের আগে পঞ্চায়েত ভোট হতে দিতে চাইছে না। সেই জন্যই তারা বারবার আদালতে যাচ্ছে। আসলে ভোট হলে তাদের রেজাল্ট খারাপ হবে তা বিরোধীরা বুঝতে পারছে। আর সেই খারাপ ফলের প্রভাব পড়বে লোকসভা ভোটে। তাই তাদের এই ষড়যন্ত্র।’

Comments
Loading...