রাতের অন্ধকারে ত্রিপুরায় কবি সুকান্তের মূর্তি ভাঙল দুষ্কৃতীরা, অভিযোগের তির বিজেপির দিকে

ফের ত্রিপুরায় মূর্তি ভাঙার ঘটনা। মার্কস, লেনিনের পর আঘাত কবি সুকান্ত ভট্টাচার্যের মূর্তিতে। অভিযোগের আঙুল গেরুয়া শিবিরের দিকে। ত্রিপুরার ‘ডেইলি দেশের কথা’ সংবাদপত্রে এই খবর বেরিয়েছে।

প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, ৩ রা মে সকালে আগরতলার বিশালগড় ব্লকের অন্তর্গত গোকুলনগর বিএসএফ ক্যাম্পের কাছে কবি সুকান্ত ভট্টাচার্যের একটি মূর্তি ভাঙা অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায়। রাতের অন্ধকারে মূর্তিটি ভাঙা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সংবাদপত্র সূত্রে দাবি।
ওই এলাকায় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, নজরুল ইসলাম, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু ও কবি সুকান্ত ভট্টাচার্যের যে চারটি মূর্তি ছিল। স্থানীয়দের অভিযোগ, বিজেপি রাজ্যের ক্ষমতায় আসার পর থেকে শুধু রবীন্দ্রনাথের মূর্তি ছাড়া অন্য মূর্তিগুলির রক্ষণাবেক্ষণে কোনও নজর দেওয়া হোত না। রবিঠাকুর ছাড়া পালন হোত না কারও জন্মদিন। বিজেপির আদর্শের সঙ্গে সুকান্তের মতাদর্শের ফারাকের কারণেই রাতের অন্ধকারে তাঁর মূর্তি ভাঙা হয়েছে বলে অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের। ক্ষমতায় আসার পর ত্রিপুরার বিভিন্ন জায়গায় লেনিন, কার্ল মার্কসের মূর্তি ভাঙার অভিযোগ উঠেছিল বিজেপির বিরুদ্ধে।
স্থানীয় মানুষের অভিযোগ, কবি সুকান্তের মূর্তি ভাঙার পেছনে বিজেপি পরিচালিত পুর পরিষদের হাত রয়েছে। ওই মূর্তির পাশ দিয়ে জাতীয় সড়কের কাজ চলছে, তাই সুকান্তের মূর্তিটি সরিয়ে অন্যত্র বসানোর কথা ভাবা হয়েছিল। রাতের অন্ধকারে যেভাবে কবির মূর্তি ভেঙে মাটিতে ফেলা রাখা হয়েছে তাতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাধারণ মানুষ থেকে সংস্কৃতি মহল। যদিও এই বিষয়ে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বের তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

Comments
Loading...